ঢাকা, বুধবার, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২৬ জুন ২০১৯
bangla news

নির্বাচনী মামলায় পঙ্গু হয়ে যাবে আ’লীগ: মান্না

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০২-১৮ ৯:২৮:১৭ পিএম
নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, ফাইল ফটো

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, ফাইল ফটো

ঢাকা: একাদশ সংসদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ করে নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের করা মামলায় আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে পঙ্গু হয়ে যাবে বলে দাবি করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

সোমবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় রাজধানীর শিশু কল্যাণ পরিষদে একটি স্মরণ সভায় এ দাবি করেন তিনি। তার দলের কেন্দ্রীয় নেতা আবু বকর সিদ্দিকীর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নাগরিক ঐক্যের উদ্যোগে এ স্মরণ সভার আয়োজন করা হয়।

এসময় নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা প্রসঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের এ নেতা বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৭৬ প্রার্থী নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা করেছেন। সামনে আরও মামলা হবে। আমাদের মামলা করাতেও সরকারের ভয়। কারণ উদাহরণ আছে, পাঁচ বছর পরেও ভোট ডাকাতি-জালিয়াতি মামলার রায় হতে পারে। যিনি ওই নির্বাচনে জিতেছেন, তার প্রার্থিতা আজীবনের জন্য বাতিল হয়ে যাওয়া উচিত। মনে রাখবেন, এক মাঘে শীত যায় না।

তিনি বলেন, আপনারা (আওয়ামী লীগ নেতারা) এখন সবকিছু গায়ের জোরে করছেন। যখন পরিস্থিতি বদলে যাবে, পাশার চাল উল্টে যাবে, তখন এই মামলায় এমন রায় হবে, তাতে রাজনৈতিকভাবে আপনারা আজীবনের জন্য পঙ্গু হয়ে যাবেন। দেশের মানুষ আপনাদের ঘৃণা করে। ভোট ডাকাতি করে নির্বাচনে জেতার কলঙ্ক কোনোদিন মোছা যাবে না।

ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি প্রসঙ্গে মান্না বলেন, নির্বাচনে কীভাবে কারচুপি হয়েছে, ভোট ডাকাতি হয়েছে- সেটার প্রমাণ দেওয়ার জন্য ঢাকায় গণশুনানির আয়োজন করা হয়েছে। কিন্তু এই গণশুনানির জায়গা পেতেও সরকার বাধা দিচ্ছে। আমরা বলতে চাই, সরকার বাধা দিলেও আমরা জায়গা পাবো এবং গণশুনানি করবো। আমরা শুধু রাজধানী ঢাকাতেই সীমাবদ্ধ থাকবো না, বিভিন্ন বিভাগে যাবো, গণশুনানি করবো। আমরা সবসময় বলবো- ওরা ভোট চোর, ভোট ডাকাত। রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যবহারের মাধ্যমে আগের রাতে ভোট ডাকাতি করে তারা নির্বাচনে জয়লাভ করেছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা ভোট ডাকাতির নির্বাচনের ধাক্কা সামলে ওঠার চেষ্টা করছি। অনেকটা সামলেও উঠেছি। ঘুরেও দাঁড়াবো। তখন আপনাদের কোনো পদক্ষেপই আমাদের আটকাতে পারবে না। অনেকে বলছেন, পরিস্থিতি উত্তোরণে এ-টু-জেড ঐক্য করার জন্য। আমি এই থিওরির বিপক্ষে নয়। আমরা এ-টু-জেড ঐক্যের চেষ্টা করছি, তাদের সঙ্গে কথা বলছি। তবে এ চেষ্টা করতে গিয়ে আমরা বসে থাকবো না। আমরা এখন পর্যন্ত যতোটুকু ঐক্যবদ্ধ হয়েছি, তার ভিত্তিতেই কর্মসূচি নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাবো।

মান্নার সভাপতিত্বে স্মরণ সভার আলোচনায় আরও অংশ নেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, নাগরিক ঐক্যের শহীদুল্লাহ কায়সার, মমিনুল ইসলাম, মিয়া শহীদ, মনিরুল হক, মাহবুবুল আলম ভূঁইয়া, সাবেক জাসদ নেতা শাহাবুদ্দিন সাথী, আনোয়ার সাদত খান বাদল প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২১২০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৯
এমএইচ/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   রাজনীতি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2019-02-18 21:28:17