bangla news

‘খালেদা বাঁশি বাজালে নমরুদ-ফেরাউনের তখত-তাউস উড়ে যাবে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-১২-১৪ ২:০৯:৫৯ পিএম
নির্বাচনী কর্মীসভায় বক্তব্য রাখছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: আরিফ জাহান

নির্বাচনী কর্মীসভায় বক্তব্য রাখছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: আরিফ জাহান

বগুড়া: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দেশে ফেরা নিশ্চিত করতে আসন্ন নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থীদের বিজয়ী করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে দেশের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ হবে। দেশে গণতন্ত্র থাকবে নাকি স্বৈরতন্ত্র চলবে।

শুক্রবার (১৪ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বগুড়া শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তনে আয়োজিত কর্মী সভায় দলের ফখরুল এ কথা বলেন। বগুড়া-৬ (সদর) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ফখরুল। তার পক্ষে এই নির্বাচনী কর্মী সভার আয়োজন করা হয়।    

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বগুড়া-৬ আসনের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক একেএম মাহবুবর রহমানের এই কর্মী সভায় সভাপতিত্ব করেন।   

ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়াকে আদালত জামিন দিলেও এই সরকার ষড়যন্ত্র করে মুক্তি দিচ্ছে না। খালেদা জিয়া বাঁশি বাজালে নমরুদ-ফেরাউনের তখত-তাউস উড়ে যাবে।

‘সরকার বুঝে গেছে নির্বাচনে তারা জয়লাভ করতে পারবে না। তাই তারা হামলা-মামলার পথ বেছে নিয়েছে। বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধের মতো স্থানেও ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের ওপর হামলা করা হয়েছে। সরকার নির্বাচন বানচাল করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে।’

ধানের শীষের প্রার্থীকে আওয়ামী লীগ ভয় পাচ্ছে উল্লেখ করে ফখরুল নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা জেগে উঠুন। বাংলাদেশের মানুষকে রক্ষা করুন। প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে ধানের শীষের কথা বলবেন। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ধানের শীষে ভোট দিতে হবে। নির্বাচনে জয়লাভ করার কোনো বিকল্প নেই।  

বিএনপি মহাসচিব বলেন, শুধু ভোট দিলে হবে না। প্রত্যেক কর্মীকে ভোটকেন্দ্র পাহারা দিতে হবে। ভোটে জয়লাভের মধ্য দিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনতে হবে।

বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রী (শেখ হাসিনা) জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। তিনি আমাদের বলেছিলেন বিনা কারণে বিএনপির কোনো নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হবে না। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী তার কথা রাখেননি। পুলিশ এখনো দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার অব্যাহত রেখেছে।

সভায় জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা, সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, সহ-সভাপতি আলী আজগর তালুকদার হেনা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বিকেলে ফখরুল বগুড়া-৬ (সদর) নির্বাচনী আসনের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করবেন। সঙ্গে থাকবেন নেতাকর্মীরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮
এমবিএইচ/এইচএ/

** ‘আত্মরক্ষার্থে নেতাকর্মীদের প্রতিরোধ গড়তে হবে’

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2018-12-14 14:09:59