[x]
[x]
ঢাকা, শুক্রবার, ৪ কার্তিক ১৪২৫, ১৯ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

‘প্রহসনের নির্বাচন’ প্রতিহত করার ডাক বি. চৌধুরীর

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৫-০১ ৯:০৩:১৭ এএম
সভায় বক্তব্য রাখছেন অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। ছবি: বাংলানিউজ

সভায় বক্তব্য রাখছেন অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: সরকার যেন ‘প্রহসনের নির্বাচন’ করতে না পারে, সেজন্য ঐক্যবদ্ধভাবে তা প্রতিহত করতে শ্রমিক শ্রেণীসহ জনতার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিকল্প ধারা বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী।
 
 

মঙ্গলবার (১ মে) দুপুরে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোডে বিকল্প ধারার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিকল্প শ্রমজীবীধারা আয়োজিত শ্রমিক সমাবেশ ও আলোচনা সভায় তিনি এ আহ্বান জানান।

বি. চৌধুরী বলেন, এই সরকার যে পাঁয়তারা চালাচ্ছে, তাতে সুষ্ঠু নির্বাচন আশা করা যায় না। এরা এর আগে একটা নির্বাচন করলো ১৫৩ জন বিনাভোটে নির্বাচিত হলো, বাকি ১৪৭ জন সদস্য হয়ে গেলেন মাইনরিটি। এই মাইনরিটির সংসদ দিয়ে তারা সংবিধান সংশোধন করলেন, যা অন্যায় এবং বেআইনি। বেআইনিভাবে নির্বাচন করে তারা রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন। কিন্তু ওই নির্বাচনের আগে তারা বলেছিলেন এটা নিয়মরক্ষার নির্বাচন। তারা কথা রাখেননি। সুতরাং যে সরকার কথা রাখে না, তাদের অধীনে আগামী নির্বাচন হাসির খোরাক ছাড়া আর কী হতে পারে?

‘এখন তারা বলছে নির্বাচনের আগে সংসদ ভাঙবে না। তাদের তথাকথিত সংসদ সদস্যরা এমপি পদের মর্যাদা ও ক্ষমতা নিয়ে মাঠে নামবে। তাই সরকার যেন কোনো প্রহসনের নির্বাচন করতে না পারে সেজন্য শ্রমিক শ্রেণীসহ সাধারণ মানুষকে ঐক্যবদ্ধভাবে তা প্রতিহত করতে হবে।’

বিকল্প ধারার প্রেসিডেন্ট বলেন, মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারকে প্রতিষ্ঠা করার জন্য এই অগণতান্ত্রিক ও স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

সংবাদপত্রে প্রকাশিত একটি সমীক্ষার উল্লেখ করে বি. চৌধুরী বলেন, বিভিন্ন দুর্ঘটনায় গত পাঁচ বছরে চার হাজার একশ’ পোশাক শ্রমিক নিহত এবং সাত হাজার শ্রমিক আহত হয়েছেন। এসব দুর্ঘ্টনা অবশ্যই বন্ধ করার ব্যবস্থা করতে হবে। সরকার অপরাধীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিচ্ছে না, আর ক্ষতিপূরণের পরিমাণও খুব কম। একজন সরকারি কর্মচারী অথবা একজন পুলিশ মারা গেলে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা পায়। এটা হলো দুই রকম বিচার।’

সম্প্রতি বাস দুর্ঘটনায় মানুষের প্রাণহানির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, রাস্তা দিয়ে চলতে গেলে বাসের চাকায় মানুষের হাত পা চলে যায়। এর মধ্যে দু’জন মারাও গেলেন। কিন্তু সরকার এ ব্যাপারে কোনো আইন প্রণয়ন করছে না বা আইন সংশোধনও করছে না।

বিকল্প শ্রমজীবীধারার সভাপতি আইনুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন বিকল্প ধারার কেন্দ্রীয় নেতা মাহবুব আলী, ব্যারিস্টার ওমর ফারুক, ইঞ্জিনিয়ার মো. ইউসুফ, ওয়াসিমুল ইসলাম, জানে আলম হাওলাদার, যুবধারার ওবায়েদুর রহমান মৃধা, আসাদুজ্জামান বাচ্চু, মাহফুজুর রহমান, বিএম নিজাম, শাহজাহান সিরাজ সবুজ, শাহ আলম, আরিফুল হক সুমন, তাসলিমা, সীমা, রবিউল, শেখ রাসেল প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৬ ঘণ্টা, মে ০১, ২০১৮
এমএইচ/এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache