[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৫, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
bangla news

জাফর ইকবালের ওপর হামলার প্রতিবাদে গণজমায়েত করবে ১৪ দল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৩-০৮ ৭:৫১:১৯ এএম
আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম (ফাইল ফটো)

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম (ফাইল ফটো)

ঢাকা: লেখক ও শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলার প্রতিবাদে আগামী ২০ মার্চ (মঙ্গলবার) কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গণজমায়েত করবে ১৪ দল। এরপর রংপুর, সিলেট, যশোরসহ বিভিন্ন স্থানে সমাবেশ করা হবে।
  
 

বৃহস্পতিবার (৮ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৪ দলের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভা শেষে জোটের মুখপাত্র এবং আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা জানানো হয় সভায়।

সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ড. জাফর ইকবাল একজন প্রখ্যাত শিক্ষক। তার ওপর এ ধরনের বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে ১৪ দল। এই হামলার মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে পরাজিত অশুভ শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। ১৪ দল মনে করে, কোনো অশুভ শক্তির ইঙ্গিতে তারা মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। আগামী নির্বাচনকে ভণ্ডুল করার জন্য এই অশুভ শক্তি তৎপর। 

বিএনপি-জামায়াতকে অভিযুক্ত করে তিনি বলেন, তারা পরিবেশকে উত্তপ্ত করার অশুভ ইঙ্গিত দিচ্ছে এই ঘটনার মাধ্যমে। রাজনৈতিক অঙ্গনকে উত্তপ্ত করতে তাদের অপচেষ্টার কারণে অশুভ শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠছে। ২০১৪ সালের মতো আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনকেও বানচাল করতে চায় বিএনপি-জামায়াত। 

নাসিম বলেন, ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলার প্রতিবাদে আগামী ২০ মার্চ কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে গণজমায়েত করবে ১৪ দল। এদের মোকাবেলায় আগামী ৩০ মার্চ রংপুরে সমাবেশ করা হবে। পর্যায়ক্রমে এই অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে সিলেট ও যশোরেও সমাবেশ করা হবে। 

১৪ দলের সভা সূত্র জানায়, সেখানে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, এই ঘটনার মধ্য দিয়ে প্রমাণ করে জঙ্গিগোষ্ঠী এখনও শেষ হয়ে যায়নি। এ ব্যাপারে সরকারকে আরও সতর্ক হতে হবে। গ্রামের কোনো কোনো মসজিদের ইমাম তাদের বয়ানে নানাভাবে জঙ্গিবাদকে উস্কে দিচ্ছেন। এসব ব্যাপারে সতর্ক থাকা দরকার।

সভায় ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, খালেদা জিয়া কারাগারে বসে তার দলের স্টিয়ারিং কমিটির সভা করেছেন। এটা কিভাবে সম্ভব? জেলে বসে দলের সভা করা এটা তো কোথাও শুনিনি। 

এজন্য তাদের পক্ষ থেকে সরকারকে সাধুবাদ দেওয়া উচিত বলেও তিনি মন্তব্য করেন। 

সভায় মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী উদারতা দেখিয়ে তাদের দলের ওই নেতাদের একসঙ্গে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দিয়েছেন। তাই হয়তো তারা সভা করার সুযোগ পেয়েছে।  

সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন জাসদের একাংশের সভাপতি শরিফ নুরুল আম্বিয়া, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৫ ঘণ্টা, মার্চ ০৮, ২০১৮ 
এসকে/এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa