[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৮ কার্তিক ১৪২৫, ২৩ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

কারাগারে খালেদাকে দেখে এলেন ভাই-বোনেরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০২-০৯ ৬:২০:৫৪ এএম
একটি গাড়িযোগে কেন্দ্রীয় কারাগারে আসেন খালেদার পরিবারের চার সদস্য। ছবি: বাংলানিউজ

একটি গাড়িযোগে কেন্দ্রীয় কারাগারে আসেন খালেদার পরিবারের চার সদস্য। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দেখে ‍পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বেরিয়ে গেছেন তার বড় বোন সেলিনা ইসলাম, ছোট ভাই শামীম এস্কান্দারসহ পরিবারের চার সদস্য।

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টা ৫ মিনিটে তারা কারাগার থেকে বেরিয়ে বংশাল রোড দিয়ে চলে যান। এর আগে সোয়া ৪টার দিকে কারাফটক দিয়ে ভেতরে ঢোকেন তারা। 

সেলিনা ও শামীম ছাড়াও সাক্ষাতে যাওয়া বাকি দু’জন হলেন শামীমের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা ও ছেলে অভি এস্কান্দার। তারা ৪৫-৫০ মিনিটের মতো খালেদা জিয়ার সঙ্গে কথা বলেন জানিয়েছে কারাগারের একটি সূত্র।

এর আগে, বেলা ২টা ৫৫ মিনিটে একটি গাড়িযোগে কারাগারের ফটকে আসেন এ চারজন। তখন তাদের পক্ষ থেকে খালেদার সাক্ষাৎ পেতে অনুমতি চাওয়া হয় কারা কর্তৃপক্ষের কাছে।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. জাহাঙ্গীর কবির বাংলানিউজকে জানান, সোয়া ৪টা ওই চারজন অনুমতিক্রমে ভেতরে ঢোকেন। 

বেলা ১১টার দিকে খালেদা জিয়ার জন্য ফল নিয়ে দেখা করতে এসেছিলেন নারী কর্মী-সমর্থকরা। একটি ফলের ডালায় সাজিয়ে খালেদার পছন্দের ফল পেঁপে, আম, আপেল, কমলা, বেদানা, আঙুর, কলা, নাসপাতি নিয়ে আসেন দুই নারী সমর্থক। কিন্তু নিয়ম না মেনে আসায় তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয় খালেদার ছেলে দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অন্য আসামিদের। রায় ঘোষণার পরই খালেদাকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০১৮
এসজেএ/এইচএ/

** খালেদাকে দেখতে কারাগারে ঢুকলেন ভাই-বোনসহ ৪ জন
** খালেদাকে দেখতে ৪ ‘স্বজন’ কারাফটকে

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache