bangla news

১২ ডিসেম্বর রাজধানীতে সম্মিলিত জাতীয় জোটের বিক্ষোভ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১২-১০ ১:৫৭:২২ এএম
সম্মিলিত জাতীয় জোট প্রধান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ/ছবি: সুমন শেখ

সম্মিলিত জাতীয় জোট প্রধান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ/ছবি: সুমন শেখ

ঢাকা: জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন স্বীকৃতির প্রতিবাদে ১২ ডিসেম্বর রাজধানীতে বিক্ষোভ করবে সম্মিলিত জাতীয় জোট (ইউএনএ)। জাতীয় পার্টির নেতৃত্বাধীন জোটটি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে।

রোববার (১০ ডিসেম্বর) রাজধানীর ইমানুয়েলস করভেনশন সেন্টারে সম্মিলিত জাতীয় জোট আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন জোট প্রধান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

এরশাদ বলেন, ট্রাম্পের ওই ঘোষণার পর সারাবিশ্বে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বিশেষ অধিবেশন বসেছে। আমরাও গোটা বিশ্বের সঙ্গে একাত্মা ঘোষণা করে জেরুজালেমকে ইসরাইলের দখলমুক্ত করার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা প্যালেস্টাইন রাষ্ট্রের পাশে আছি, মুসলিম উম্মার সঙ্গে আছি।

ইসলামের প্রথম কেবলা আল আকসা মসজিদসহ জেরুজালেমকে মুক্ত রাখতে গোটা মুসলিম উম্মাহকে প্রতিদের ঝড় তোলার আহ্বান জানান এরশাদ।

এরশাদ বলেন, ট্রাম্পের এ ঘোষণা জাতিসংঘের সিদ্ধান্তের পরিপন্থি। ১৯৪৮ সালে ফিলিস্তিনিদের বিতাড়িত করে ইহুদি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করে। এরপর থেকেই নির্যাতন-অত্যাচার ও দখলদারিত্ব চালিয়ে আসছে ইসরাইল। ১৯৬৭ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধের আগে পূর্ব জেরুজালেম জর্ডানের অংশ ছিলো। আরব-ইসরাইল যুদ্ধের পরে জেরুজালেম, সিনাই ও গোলান উপত্যকায় অস্ত্রের জোরে দখল করে নেয় ইসরাইল।

তখন জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ ইসরাইলের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করে। অন্যদিকে সাধারণ পরিষদ দখলকৃত সব আরব ভূখণ্ড ছেড়ে দেওয়ার দাবি জানায়। যা জাতিসংঘের ২৪২ নম্বর প্রস্তাব নামে পরিচিত। প্রস্তাবে ইসরাইলকে ১৯৬৭ সালের আগের সীমানায় ফিরে যাওয়ার জন্য বলা হয়। 
এ বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ক্লিনটনের উদ্যোগে ইসরাইল ও প্যালেস্টাইনের মধ্যে অসলো চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। অসলো চুক্তিকে সবাই স্বাগত জানিয়েছিলো। এরপর পূর্ব জেরুজালেমকে রাজধানী করে এ স্বাধীন প্যালেস্টাইন রাষ্ট্র ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত হয়।

কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে ৯০ নব্বই দশকে জেরুজালেমকে রাজধানী ঘোষণা করে ইসরাইল। কিন্তু তখন যুক্তরাষ্ট্রসহ কোনো রাষ্ট্রই তাদের দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তর করেনি। কারণ ২৪২ নম্বর প্রস্তাবে বলা ছিলো ইসরাইল জেরুজালেমকে রাজধানী ঘোষণা করতে পারবে না। তাই ডোনাল্ড ট্রাম্পের একতরফা সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা না হলে কোনো ভাবেই মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ফিরে আসবে না।

সাংবাদিক সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে এরশাদ বলেন, রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পর আমরা জাতীয় নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবো।

সংবাদিক সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, এসএম ফয়সল চিশতী, মীর আবদুস সবুর আসুদ, সুনীল শুভরায়, এরশাদের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূইয়া প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১০, ২০১৭
এসআই/এসএইচ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2017-12-10 01:57:22