bangla news

ওয়ার্কার্স পার্টির খুলনা জেলা সভাপতি হাফিজুর রহমান আর নেই

ব্যুরো এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০২-১২ ৭:২৯:৩১ এএম
হাফিজুর রহমান ভূঁইয়া

হাফিজুর রহমান ভূঁইয়া

খুলনা: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য ও খুলনা জেলা  সভাপতি প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা কমরেড হাফিজুর রহমান ভূঁইয়া (৭৬) আর নেই (ইন্না লিল্লাহি... ...রাজিওন)।

রোববার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টা ৪৫ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাফিজুর রহমান শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন বলে দলীয় সূত্রে জানা যায়।

কমরেড হাফিজুর রহমান জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও পাট-সুতা-বস্ত্রকল সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

২০১৬ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর কমরেড হাফিজুর রহমান ভূইয়াকে দিল্লির বিএলকে হাসপাতালে লিভারের টিউমার অস্ত্রোপচার হয়। সেখান থেকে ফিরে এসে পরবর্তীতে চেক-আপের উদ্দেশে ২৮ ডিসেম্বর দিল্লির হাসপাতালে ভর্তি হতে দেশ ত্যাগ করেন তিনি। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত ১৩ জানুয়ারি  তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। গত শুক্রবার একই অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মৃত্যুকালে হাফিজুর রহমান ভূইয়া স্ত্রী, ১ কন্যা, ২ ছেলে, পুত্রবধূ, জামাতা ও নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

সোমবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) ঢাকায় ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর পর তার মরদেহ খুলনায় নেওয়া হবে। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় খুলনার শহীদ হাদিস পার্কে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধার জন্য তার মরদেহ রাখা হবে। সেখানে শ্রদ্ধা ও জানাযা শেষে পর্যায়ক্রমে খালিশপুর প্লাটিনাম ময়দান, দৌলতপুর শহীদ মিনার চত্বর, আলীম-ইস্টার্ন চত্বর, ফুলতলা পার্টি অফিস, ফুলতলা উপজেলা ডাবুর মাঠে শ্রদ্ধাঞ্জলি ও জানাজা শেষে উপজেলা সরকারি কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হবে।
 
এদিকে কমরেড হাফিজুর রহমানের মৃত্যুর খবর খুলনায় ছড়িয়ে পড়লে শোকের ছায়া নেমে আসে। বিশেষ শিল্পাঞ্চল এলাকায় শ্রমিকরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

প্রয়াত কমরেডের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন খুলনা জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি, আওয়ামী লীগসহ খুলনার বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।
 
কমরেড হাফিজুর রহমান খুলনার ফুলতলা উপজেলার দামোদর গ্রামে সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৪১ সালে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬০-৬১ সালে দৌলতপুর বিএল কলেজে অধ্যয়নকালে ছাত্র ইউনিয়নে যোগদানের মাধ্যমে তার রাজনৈতিক অঙ্গণে প্রবেশ এবং ছাত্র অবস্থায় ফুলতলার প্রবীণ রাজনীতিবিদ কালিপদ ঘোষের হাত ধরে কমিউনিস্ট পার্টিতে যোগদান করেন তনি।

এ সময় কমিউনিস্ট পার্টি নিষিদ্ধ থাকায় ভাষানী ন্যাপের রাজনীতি করতেন হাফিজুর রহমান। ১৯৬৩ সালে আযমখান কমার্স কলেজ থেকে বিকম ও ১৯৬৫ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এম কম পাস করেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৬
এমআরএম/এমজেএফ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2017-02-12 07:29:31