bangla news

রামেক থেকে ছাত্রলীগের ৫ নেতাকে বহিষ্কার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬-০৪-১৪ ৯:০৪:২৬ এএম

গভীর রাতে অস্ত্র নিয়ে মারামারির ঘটনায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) পাঁচ ছাত্রলীগ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

রাজশাহী: গভীর রাতে অস্ত্র নিয়ে মারামারির ঘটনায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) পাঁচ ছাত্রলীগ নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ এপ্রিল) রামেক ছাত্রলীগের আলোচিত সহ-সভাপতি ও এমবিবিএস পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থী আরমান হোসেন এবং কাজী সালমানকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়।

এছাড়া দলীয় নেতাদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টিতে ইন্ধন যোগানোর অভিযোগে অরও তিন জনকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। এরা হলেন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মারুফ হোসেন, উপ-দফতর সম্পাদক সৌরভ হোসেন ও সদস্য শোভন আহমেদ।

রামেক ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পল্লব হোসেন, ছাত্রলীগ কর্মী রাব্বি, অনিক হোসেন, মুশফিক হোসেন ও নাহিদ হোসেনকে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে রামেক শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম অপু জানান, রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান রাজীব বৃহস্পতিবার দুপুরে রামেক ক্যাম্পাসে গিয়ে ছাত্রলীগের ওই নেতাদের বহিষ্কারের ঘোষণা দেন।

এ সময় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি অর্ণা জামানও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

রাজীব জানান, অস্ত্রবাজি নয়- দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে। তারা দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গেই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছিলো।

এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়ে পরে গণমাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হবে, বলেন তিনি।

এর আগে বুধবার (১৩ এপ্রিল) গভীর রাতে রামেক ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আরমান হোসেন ও কাজী সালমানসহ ৭ নেতাকর্মী রামেক ছাত্রলীগেরই সাংগঠনিক সম্পাদক বিজয় হোসেনের ওপর হামলা চালান।

তারা রামেকের পিংকু হোস্টেলের ৭ নম্বর কক্ষে নিয়ে গিয়ে মারধর করলে রাতেই হোস্টেলে অভিযান চালায় রাজপাড়া থানা পুলিশ। অভিযানে কক্ষটি থেকে ছাত্রলীগ নেতা আরমান, কাজী সালমান, রাব্বি, অনিক হোসেন, মুশফিক হোসেন ও নাহিদ হোসেনকে আটক করা হয়।

সারারাত তাদের থানা হাজতেই রাখা হলেও বৃহস্পতিবার সকালে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

রামেকের একাধিক সূত্র জানায়, রাতে পিংকু হোস্টেলের ওই কক্ষ থেকে ৭ ছাত্রলীগ নেতাদের আটকের সময় একটি বন্দুক, একটি এয়ারগান ও বেশকিছু দেশি সস্ত্র জব্দ করে পুলিশ।

কিন্তু রাজশাহীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুর রহমান বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, রামেক অধ্যক্ষের মধ্যস্ততায় আটক ছাত্রলীগ নেতাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে আটকের সময় কোনো অস্ত্র জব্দ করা হয়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৪, ২০১৬
এসএস/এটি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2016-04-14 09:04:26