bangla news

‘দাদাবাবুরা এ সরকারকে ক্ষমতায় রাখতে পারবে না’

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৭-৩১ ১১:০৮:৫০ পিএম

সংবিধান থেকে ‘সর্বশক্তিমান আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা’ শব্দটি তুলে দেওয়া হলে কোনো দাদা বাবু এ সরকারকে ক্ষমতায় রাখতে পারবে না।

ঢাকা: সংবিধান থেকে ‘সর্বশক্তিমান আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা’ শব্দটি তুলে দেওয়া হলে কোনো দাদা বাবু এ সরকারকে ক্ষমতায় রাখতে পারবে না। ধর্মাশ্রয়ীর অভিযোগে বাংলাদেশের কোনো রাজনৈতিক দলকে নিষিদ্ধ করতে হলে আগে আওয়ামী লীগকেই নিষিদ্ধ করতে হবে।

রোববার বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেসকাবের ভিআইপি লাউঞ্জে এক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এসব কথা বলেন।

‘গ্রেপ্তার, নির্যাতন, প্রতিহিংসার রাজনীতিতে আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এ গোলটেবিল বৈঠক আয়োজন করে সুশীল ফোরাম নামে জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী একটি নাগরিক সংগঠন।

বৈঠকে সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহাবুব হোসেন বলেন, ‘সংবিধান থেকে ‘সর্বশক্তিমান আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা’ শব্দটি তুলে দেওয়া হলে কোনো দাদা বাবুরা এ সরকারকে ক্ষমতায় রাখতে পারবে না।’

শেখ হাসিনাকে ভারতের পুতুল হিসেবে অভিহিত করে তিনি আরও বলেন, ‘শেখ হাসিনাকে দোষারোপ করে কোনো লাভ নেই। তিনি হচ্ছেন তাদের পুতুল। তাকে যেভাবে নাচতে বলা হয় তিনি সেভাবেই নাচেন। কারণ তিনি দাসখত দিয়ে ক্ষমতায় এসেছেন।’

সম্প্রতি পোশাক শিল্পের অরাজকতা প্রসঙ্গে মাহবুব হোসেন বলেন, ‘বিদেশি চক্রই পোশাক শিল্পে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করছে। কারণ বর্তমানে আধিপত্যবাদীরা দেশ নয় দেশের অর্থনীতি খাতকে দখল করে।’

যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, ‘ধর্মাশ্রয়ীর অভিযোগে বাংলাদেশের কোনো রাজনৈতিক দলকে নিষিদ্ধ করতে হলে সবার আগে আওয়ামী লীগকে নিষিদ্ধ করতে হবে।’

জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতাদের দেশবরেণ্য ও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন দীন-এ আলেম হিসেবে আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, এসব আলেমদের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অথচ মানবতাবিরোধী অপরাধ আওয়ামী লীগের চেয়ে বেশি করেছে এমন কোনো রাজনৈতিক দল এ উপমহাদেশে নেই।’

মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ হলো ভুভুজেলার মতো, একে আইন দিয়ে বন্ধ করা যায় না। আবার এর কর্মকাণ্ডও সহ্য করা যায় না।’  

বিএনপি দলীয় সাংসদ শাম্মি আক্তার বলেন, ‘বাকশাল সম্পর্কে সুস্পষ্ট ব্যাখা না দিয়ে ’৭২ এর সংবিধানে ফিরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত দেশের জনগণ কোনোভাবেই মেনে নেবে না।’

ফোরামের সভাপতি মো. জাহিদের সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য রাখেন- বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন এমপি, ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব আব্দুল লতিফ নেজামী, জামায়াত নেতা ডা. সৈয়দ আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের, জাগপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, ঢাকা মহানগর মহিলা দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মিলি আক্তার প্রমুখ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মো. মনির হোসেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩০ ঘণ্টা, ০১ আগস্ট ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2010-07-31 23:08:50