bangla news

উপদেষ্টাদের দিয়ে উল্টা-পাল্টা বলাচ্ছে আ.লীগ: ফখরুল

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৫-২৪ ৮:১০:৩১ এএম

‘আওয়ামী লীগ দেউলিয়া হয়ে গেছে’ বলে মন্তব্য করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘দলটিতে এখন এমন কোন নেতা নেই যাকে দিয়ে প্রেস কনফারেন্স করানো যায়। তাই উপদেষ্টাদের দিয়ে প্রেস কনফারেন্স করিয়ে উল্টা-পাল্টা বলাচ্ছে।’

ঢাকা: ‘আওয়ামী লীগ দেউলিয়া হয়ে গেছে’ বলে মন্তব্য করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘দলটিতে এখন এমন কোন নেতা নেই যাকে দিয়ে প্রেস কনফারেন্স করানো যায়। তাই উপদেষ্টাদের দিয়ে প্রেস কনফারেন্স করিয়ে উল্টা-পাল্টা বলাচ্ছে।’

মঙ্গলবার বিকেলে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

খালেদা জিয়া, তারেক রহমান ও আরাফাত রহমান কোকোর মামলা প্রত্যাহার এবং বিএনপির বন্দি নেতাদের মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর বিএনপি এ বিক্ষোভের আয়োজন করে।

এতে মির্জা ফখরুল তার বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচটি ইমামের কড়া সমালোচনা করেন।

‘অতীত কর্মকা-ের জন্য খালেদা জিয়াকে ক্ষমা চাইতে হবে’ বলে সম্প্রতি এইচটি ইমাম যে বক্তব্য দিয়েছেন তার জবাবে ফখরুল বলেন,  ‘ক্ষমা আপনাকে চাইতে হবে। কারণ, আপনি সেই ব্যক্তি যিনি মুশতাক সরকারকে শপথ পড়িয়েছিলেন। আপনি সেই সরকারের উপদেষ্টা যারা মইন-ফখরুদ্দীনের সঙ্গে আঁতাত করে ক্ষমতায় এসেছে।’

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লী সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত সোমবার ‘বিএনপির মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবি অযৌক্তিক’ বলে যে মন্তব্য করেছেন তার জবাবে ফখরুল বলেন, ‘আপনি আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিন আড়াই বছরে আপনারা কোন কোন ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘মধ্যবর্তী নির্বাচন দেবেন এই কারণে যে আপনারা দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটেছে। বেড়েছে বিচার বহির্ভূত হত্যাকা-। লিমনের মতো একজন টগবগে যুবক শিকার হয়েছে বিচার বহির্ভূত নির্যাতনের। সীমান্ত রক্ষা করতে পারেননি। নিরাপত্তা দিতে পারেননি মানুষের জীবনে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিচারপতি খায়রুল হক জ্বালিয়ে ভেজে সংবিধান খেয়ে ফেলেছেন। আপনারা ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে তাকে দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রধান করে নির্বাচন করার স্বপ্ন দেখছেন। কিন্তু তাকে তত্ত্বাবধায়ক প্রধান করে নির্বাচন কোন অবস্থাতেই মেনে নেওয়া হবে না। দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে তুলে মধ্যবর্তী নির্বাচন দিতে বাধ্য করা হবে।

ঢাকা মহানগর বিএনপির আহবায়ক সাদেক হোসেন খোকার সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তৃতা করেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম-মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, যুব বিষয়ক সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মহিলা দল সেক্রেটারি শিরিন সুলতানা, ছাত্রদল সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকু প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫১ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2011-05-24 08:10:31