bangla news

খালেদা জিয়ার মামলা প্রত্যাহার করলে সংসদে যাবে বিএনপি:মওদুদ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৫-২১ ৩:৪২:১৫ এএম

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার চারটি মামলা প্রত্যাহার করলেই রোববার শুরু হতে যাওয়া নবম জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশনে যোগ দেবে বিএনপি।

ঢাকা: বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার চারটি মামলা প্রত্যাহার করলেই রোববার শুরু হতে যাওয়া নবম জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশনে যোগ দেবে বিএনপি।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর ভাসানী মিলনায়তনে জিয়া ব্রিগেড আয়োজিত ‘সংবিধান নিয়ে চলমান সংকট: বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ্ এ শর্ত জুড়ে দেন।

এর আগে (শুক্রবার) বিরোধী দলের চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবি মেনে নেওয়ার শর্তে সংসদে যোগ দেওয়ার কথা বলেছিলেন।

সংসদে যোগ দেওয়ার ব্যাপারে স্পিকার এডভোকেট আব্দুল হামিদের আহ্বানের জবাবে ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, ‘আজ-ই (শনিবার) বিরোধী দলের নেতা খালেদা জিয়ার মাত্র চারটি মামলা তুলে নিন, কাল-ই  (রোববার) আমরা সংসদে যোগ দেব।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর রাজনৈতিক বিবেচনায় দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রায় ৮ হাজার মামলা প্রত্যাহার করেছে। আমাদের এত প্রয়োজন নেই। কেবল বিরোধী দলের নেতা বেগম জিয়ার ৪টি মামলা প্রত্যাহার করলেই আমরা সংসদে যাব।’

এ প্রস্তাব মেনে নিয়ে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপনের আহ্বান জানিয়ে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ্ বলেন, ‘অগত্যা আমাদের এই ছোট্ট প্রস্তাবটি মেনে নিয়ে প্রমাণ করুন আপনারা বিরোধী দলকে সংসদে ফেরাতে চান। কিন্তু আমরা জানি সেই মানসিকতা আপনাদের নেই।’

তিন বলেন, ‘এ অধিবেশনে কোনও বিতর্কিত ইস্যুতে বিল পাস হলে তা প্রত্যাখ্যান করা হবে। একই সঙ্গে আগামীতে টু থার্ড মেজরিটি (দুই তৃতীয়াংশ) নিয়ে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে সংসদে পাস হওয়া সবগুলো আইন বাতিল করা হবে।’

এ সময় সংবিধান নিয়ে সৃষ্ট সংকটের জন্য বর্তমান সরকার ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হককে দায়ি করেন ব্যারিস্টার মওদুদ।

তিনি বলেন, ‘সংবিধান নিয়ে যে সংকট সৃষ্টি হয়েছে তার জন্য পুরোপুরি দায়ী বর্তমান সরকার ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক। তার নেতৃত্বে যতগুলো রায় হয়েছে তার প্রত্যেকটি সাংঘর্ষিক। প্রধানন্ত্রীর বাসনাকে পূর্ণ করতেই এ রায়গুলো দেওয়া হয়েছে।’   

জিয়া ব্রিগেডের সভাপতি জাহিদ ইকবালের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনপিপি’র চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নিলু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক  প্রো ভিসি অধ্যাপক ড. আফম ইউসুফ হায়দার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ড. এবিএএম ওবায়দুল ইসলাম, বিএনপির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক একে এম মোশাররফ হোসেন, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নাসির উদ্দিন ওয়াসীম ।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের সাবেক ডিন অধ্যাপক ডা. বোরহান উদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জিয়া ব্রিগেডের মহাসচিব  মো. আবুল হোসেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৫ ঘণ্টা, মে ২১, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2011-05-21 03:42:15