ঢাকা, শনিবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৭ জিলহজ ১৪৪১

রাজনীতি

বাংলানিউজকে একান্ত সাক্ষাৎকার

উপজেলা নির্বাচনে লড়বেন নিহত বাবুর স্ত্রী মহুয়া

বিপ্লব কুমার পাল | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০১০
উপজেলা নির্বাচনে লড়বেন নিহত বাবুর স্ত্রী মহুয়া

ঢাকা: নাটোরের নিহত উপজেলা চেয়ারম্যান সানাউলাহ নূর বাবুর স্ত্রী মহুয়া নূর কচি উপজেলা নির্বাচনে লড়বেন। এজন্য প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছেন।

স্বামীর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতেই নির্বাচনে লড়ার এই সিদ্ধান্ত তার।

২৩ অক্টোবর শনিবার বাংলানিউজকে দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি তার এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।

মহুয়া নূর কচি বলেন, ‘আমার স্বামীকে তো আর ফিরে পাবো না। কিন্তু তার স্বপ তো  বাস্তবায়ন করতে পারি। আর সেজন্যই সিদ্ধান্ত নিয়েছি নির্বাচনে লড়ব। স্থানীয় মানুষও তাই চায়। কারণ সানাউলাহ নূর বাবু জনপ্রিয় ছিলেন। দলমত নির্বিশেষে সবাই তাকে ভালবাসতো। স্থানীয় মানুষও চাচ্ছে, আমি যেন নির্বাচনে জিতে তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করি। ’

তিনি আরও বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আমাকে বলেছেন আমি পেরেছি, তুমিও পারবে। মাঠে থাকো। মানুষের কাছে যাও। দল তোমার সঙ্গে থাকবে। ’

’শুধু উপজেলা নির্বাচন, নাকি পরে সংসদ নির্বাচনেও অংশ নেবেন?’ –বাংলানিউজের পক্ষ থেকে এ প্রশ্নও ছুড়ে দেওয়া হয় তার দিকে। জবাবে মহুয়া  বলেন, ‘সময়ই বলে দেবে কী করতে হবে। আমি স্বপ্নেও কখনো ভাবিনি স্বামী হারিয়ে উপজেলা নির্বাচনে অংশ নেবো। কিন্তু সময় আমাকে বলছে তুমি উপজেলা নির্বাচন করো। তাই সময় যদি বলে তবে সংসদ নির্বাচন হবে। ’

পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারানোর পর দলের পক্ষ থেকে কোনও আর্থিক সহযোগিতা পেয়েছেন কি-না জানতে চাওয়া হলে মহুয়া বলেন, ‘সেভাবে এখনও কোনও সহযোগিতা পাইনি। তবে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আমাকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। তাছাড়া সাবেক ভূমি উপমন্ত্রী অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু সহযোগিতা করেছেন। ’

বাবু হত্যাকাণ্ড নিয়ে বিএনপির আন্দোলন নিয়ে সন্তুষ্ট কি-না জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘স্থানীয় এবং জাতীয়ভাবে বাবুহত্যার প্রতিবাদে আন্দোলন হচ্ছে। প্রায় প্রতিদিনই প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন হচ্ছে। ’

শনিবার রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি সিদ্দিকুর রহমান নিহত বাবুর স্ত্রী মহুয়া নূর কচির সঙ্গে দেখে করেন।

এ ব্যাপারে মহুয়া বলেন, ‘আমি তার কাছে আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছি। দোষীদের ফাঁসির দাবি করেছি। রাজনৈতিকভাবে নয়, মানবিক দিকে থেকে বিচার করে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছি। ডিআইজি আমাকে আশস্ত করে বলেছেন অল্প দিনের মধ্যে দোষীদের গ্রেপ্তার করা হবে। ’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘স্থানীয় সাংসদ আওয়ামী লীগ নেতা  বাবু নিহত হওয়ার পর আব্দুল কুদ্দুস বক্তব্য দেওয়ার পর আসামিরা বেপরোয়া হয়ে পড়েছে। তারা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এ কারণে মেয়েদের নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। ’

দেশবাসীর উদ্দেশে মহুয়া নূর কচি বলেন, ‘আমার পরিবারের জন্য সবার কাছে দোয়া চাই। আমার সন্তানরা যেন মানুষের মতো মানুষ হতে পারে। সবার দোয়া পেলে আমার স্বামী বেহেস্তবাসী হবেন। ’

গত ৮ অক্টোবর নাটোরে বিএনপির মিছিলে ক্ষমতাসীন দলের হামলায় নিহত হন বড়াইগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান ও বনপাড়া পৌর বিএনপির সভাপতি সানাউল্লাহ নূর বাবু। আহত হন আরও ৪০ জন।

বাংলাদেশ সময়: ২১১০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa