ঢাকা, সোমবার, ৩ আষাঢ় ১৪৩১, ১৭ জুন ২০২৪, ০৯ জিলহজ ১৪৪৫

রাজনীতি

সরকার জুলুমের মাধ্যমে টিকে আছে: ১২ দলীয় জোট

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৫ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২৪
সরকার জুলুমের মাধ্যমে টিকে আছে: ১২ দলীয় জোট

ঢাকা: এই সরকার জুলুম-নির্যাতনের মাধ্যমে ক্ষমতায় টিকে আছে বলে অভিযোগ তুলেছেন ১২ দলীয় জোটের নেতারা। তারা বলেছেন, আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের বিদায় করে ‘জনগণের সরকার’ প্রতিষ্ঠা করা হবে।

মঙ্গলবার (২১ মে) বেলা ১২টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপা আয়োজিত ‘আগ্রাসনবিরোধী আন্দোলন ও আজকের বাংলাদেশ এবং মরহুম শফিউল আলম প্রধানের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা’য় বক্তারা এসব কথা বলেন।

১২ দলীয় জোটের প্রধান ও জাতীয় পার্টি (জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার বলেছেন, ভারতীয় আগ্রাসন বাংলাদেশকে গ্রাস করেছে। বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা এখন ভারত নিয়ন্ত্রিত এবং ভারতকে সর্বময় সহযোগিতা করছে আমাদের দেশের আওয়ামী লীগ সরকার। এখন প্রয়োজন সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা।

তিনি বলেন, এই সরকার একটি ভারতীয় কৃতদাস সরকার। এই সরকারের শাসনামলে বাংলাদেশের অবস্থা অত্যান্ত ভয়াবহ রূপ ধারণ করছে। এই সরকার আজ জুলুম নির্যাতনের মাধ্যমে ক্ষমতায় টিকে আছে। ইনশাআল্লাহ আমরা নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করে আন্দোলনের মাধ্যমে ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ সরকারের বিদায় করবো।

সভাপতির বক্তব্যে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি-জাগপার সহসভাপতি ও দলীয় মুখপাত্র রাশেদ প্রধান বলেন, আমার মরহুম বাবা শফিউল আলম প্রধান এবং মরহুমা মা অধ্যাপিকা রেহানা প্রধান বাংলাদেশের সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্রের জন্য আমৃত্যু সংগ্রাম করে গেছেন। আমিও দেশের সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্রের জন্য লড়াই চালিয়ে যাবো।

তিনি বলেন, আগামীতে আন্দোলনের মাধ্যমে এই ফ্যাসিস্ট আওয়ামী লীগ সরকারের বিদায় করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করবো।

জাগপার সহ-সভাপতি রাশেদ প্রধানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এহসান মাহবুব জুবায়ের, বাংলাদেশ এলডিপির মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, ১২ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদা, এনডিএমের চেয়ারম্যান ববি হাজ্জাজ, গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক মিয়া মসিউজ্জামান, আমার বাংলাদেশ পার্টির (এবি পার্টি) সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু, জমিয়ত উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব মাওলানা গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মো. ফারুক রহমান, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান শামসুদ্দিন পারভেজ, জাগপার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ইকবাল হোসেন, ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মাওলানা আব্দুল করিম, ইসলামিক পার্টির মহাসচিব আবুল কাশেম, জাগপার প্রেসিডিয়াম সদস্য আসাদুর রহমান খান, জামায়াতের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নায়েবে আমির ড. হেলাল উদ্দিন, কেন্দ্রীয় নেতা কাজী ফখরুউদ্দিন মানিক, আতাউর রহমান, জনতার অধিকার পার্টির চেয়ারম্যান, তারিকুল ইসলাম ভূইয়া, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, লেবার পার্টির শরিফুল ইসলাম, নয়া গণতান্ত্রিক পার্টির চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান, জাগপা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র সরকার প্রমুখ।
 
স্মরণ সভা পরিচালনা করেন যুব জাগপার সভাপতি নজরুল ইসলাম বাবলু।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৩ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২৪
টিএ/এইচএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।