ঢাকা, শুক্রবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৭, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬ সফর ১৪৪২

রাজনীতি

খালেদার বাড়ি নিয়ে রাজনীতির ফল ভালো হবে না: সাকা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০১০
খালেদার বাড়ি নিয়ে রাজনীতির ফল ভালো হবে না: সাকা

ঢাকা: খালেদা জিয়ার ক্যান্টনমেন্টের বাড়ি বরাদ্দের বিষয়টিকে ‘সেনাবাহিনীর বিষয়’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী। একইসঙ্গে রাজনৈতিক নেতাদের এতে না জড়াতে বলেছেন তিনি।



তিনি বলেন, ‘বিষয়টির সমাধান সেনাবাহিনীই করতে পারে। এ নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর কিছু করার নেই। এক্ষেত্রে রাজনৈতিক নেতাদের নাক না গলানোই ভালো। ’

রোববার সকালে ধানমন্ডির নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সালাউদ্দিন কাদের এসব কথা বলেন।

‘বিষয়টি নিয়ে বিএনপিরও কথা বলা উচিত নয়’ মন্তব্য করেন দলের স্থায়ী কমিটির এ সদস্য।

সাকা চৌধুরী বলেন, ‘একজন নিহত সেনাপ্রধানের স্ত্রীকে বরাদ্দ দেওয়া বাড়ি থেকে তাকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছে একটি রাজনৈতিক দল। এটা তারা করতে পারে না। এটা আদালত বা কোনো রাজনৈতিক দলের বিষয় নয়। ’

তিনি বলেন, ‘বাড়ির মালিকের খবর নেই, বাড়ির দারোয়ান এসে উচ্ছেদের নোটিশ দিচ্ছে। এটা কি করে হয়। ’

রাজনীতিদকদের ভুলের কারণে আগামী দিনে দেশে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘সেনানিবাসের ভেতরে অনেক ব্যবসায়ীও থাকেন, এখানে খালেদা জিয়ার থাকলে অসুবিধা কি?’

সাকা চৌধুরী বলেন, ‘তবে ক্যান্ট্যানমেন্টকে রাজধানী থেকে দূরে রাখা উচিত। যদিও যে সময় এটা করা হয় তখন এ এলাকা রাজধানীর বাইরেই ছিল। পৃথিবীর বেশির ভাগ দেশেই ক্যান্টনমেন্ট রাজধানীর বাইরে করা হয়। ’

তার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপারাধের অভিযোগ পাওয়া গেছে এমন প্রশ্নের জবাবে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী বলেন, ‘অভিযোগ ও সাক্ষ্য পাওয়া কঠিন কাজ নয়। সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য ভাড়ায় লোক পাওয়া যায়। ’

তিনি বলেন, ‘ওয়ান-ইলেভেনের সময় শেখ হাসিনার বিরুদ্ধেও অনেক অভিযোগ পাওয়া গেছে। তখন সাক্ষী ছিল শেখ সেলিম, আব্দুল জলিল, নূর আলী। আমার বিরুদ্ধে তারা সাক্ষী তৈরি করতেই পারে। আগামীতে আবার তাদের বিরুদ্ধেও সাক্ষীর অভাব হবে না। ’

বিএনপি নেতা বলেন, ‘এতো আসন নিয়ে ক্ষমতায় আসার পরও প্রশাসনের দায়মুক্তির আইন পাস করতে হয়, এটা রাজনৈতিক নেতাদের পরাজয় ছাড়া আর কিছুই নয়। ’

তিনি রাজনীতিবিদদের দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, ‘দেশে অস্থিরতা বিরাজ করছে, খুন, সন্ত্রাস, চাঁদবাজিতে দেশের মানুষ অতিষ্ঠ। রাজনীতিবিদদের সেনাবাহিনীর বিষয়ে নাক না গলিয়ে এসব দিকে নজর দেওয়া উচিত। কারণ এমনিতেই তাদের সঙ্গে সেনাবাহিনীর মতপার্থক্য রয়েছে। ’

যুদ্ধাপারাধের বিচার প্রসঙ্গে সাকা চৌধুরী বলেন, ‘যেহেতু বিডিআরের ঘটনা আগে ঘটেছে তাই নতুন আইন করে বিডিআরের বিচার করা যাবে না- আপিল বিভাগের এ রায় যদি ঠিক হয় তাহলে ৩৯ বছর পর যুদ্ধাপারাধের বিচারে নতুন আইন করা হয় কীভাবে। ’

সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী রাজনীতিবিদদের ইজ্জত রক্ষার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, ‘জনগণ যাদের ভোট দিয়ে সংসদে পাঠিয়েছে তাদের জনগণের জন্য কাজ করতে দিন। ’

তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে রাজনীতি করা হলে তা ভালো কোনো ফলাফল বয়ে আনবে না। ’

তিনি বলেন, ‘পবিত্র কোরআনে হেজাব পরার পক্ষে বলা হলেও কোর্ট এর বিপক্ষে রায় দিয়েছে। এখন কারটা মানবো, কোরআনের কথা, না আদালতের রায়। ’

তিনি বলেন, ‘আরবি নাম হলে নাকি এখন চাকরি পাওয়া যায় না। তাহলে কি চাকরি পেতে হলে এখন নাম পরির্তন করতে হবে। ’

ভুল ইস্যুকে রাজনীতিতে টেনে আনার কারণে দেশের রাজনৈতিক দল ও রাজনীতিকরা সমালোচনার মুখে পড়ছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সাকা চৌধুরী বলেন, ‘এ কারণেই সমাজে রাজনীতিকদের মূল্য কমে যাচ্ছে। ’

বাংলাদেশ সময় ১৪৪৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa