ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

রাজনীতি

বরিশালে গণতন্ত্র মঞ্চের প্রতিবাদ সমাবেশ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০২৩
বরিশালে গণতন্ত্র মঞ্চের প্রতিবাদ সমাবেশ

বরিশাল: বিরোধী দলের গ্রেফতার নেতাকর্মীদের মুক্তি এবং বিদ্যুৎ ও গ্যাসসহ নিত্যপণ্যের মূল্য কমানোর দাবিতে বরিশালে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে গণতন্ত্র মঞ্চ।

শনিবার (০৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় বরিশাল নগরের অশ্বিনী কুমার হল চত্বরে এ সমাবেশ শুরু হয়।

গণসংহতি আন্দোলন বরিশাল জেলার সদস্য হাছিব আহমেদের সঞ্চালনায় সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন গণতন্ত্র মঞ্চের বরিশাল জেলা সমন্বয়ক ও গণসংহতি আন্দোলন বরিশাল জেলার আহ্বায়ক দেওয়ান আবদুর রশিদ নীলু।

বক্তব্য রাখেন গণ অধিকার পরিষদের জেলা সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম রাসেল, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সমীরণ হালদার, গণসংহতি আন্দোলন বরিশাল জেলা কমিটির সদস্য সচিব আরিফুর রহমান মিরাজ, ভাসানী অনুসারী পরিষদ বরিশাল জেলা কমিটির সদস্য আব্দুল মান্নান।

আরও বক্তব্য রাখেন যুব অধিকার পরিষদের বরিশাল মহানগর সদস্য সচিব ফরহাদ হোসেন তালুকদার, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) জেলা সাধারণ সম্পাদক বিজয় কৃষ্ণ বড়াল, গণসংহতি আন্দোলন বরিশাল জেলা সদস্য জাবের মোহাম্মদ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, জনগণের পকেট কাটতে এবং লুটপাটের অর্থ যোগান দিতেই সরকার আবারও গ্যাস বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি করছে। জ্বালানি দাম বৃদ্ধির ফলে জ্বালানি সংশ্লিষ্ট সকল পণ্যের দাম বৃদ্ধি পাবে, যা জনগণের জন্য মড়ার ওপর খাড়ার ঘা।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, সরকার একের পর এক গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিতে পারছে, কারণ এই সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়, জনগণের কাছে তাদের কোনো দায়বদ্ধতা নেই, জবাবদিহিতা নেই। একদিকে সরকার গুম-খুন-অপহরণ এবং বিরোধী মত দমন, গ্রেফতার-হামলা-মামলাসহ জনগণের সমস্ত অধিকার হরণ করে চলেছে। অন্যদিকে গ্যাস, বিদ্যুৎ, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি করে জনগণের পকেট কাটছে। জনগণের টাকায় গড়ে তোলা রাষ্ট্রীয় কোষাগার উজাড় করে সেই টাকা বিদেশে পাচার করছে সরকার ঘনিষ্ঠরা। এরকম জবরদস্তি ও জবাবদিহিতাহীনভাবে একটি দেশ চলতে পারে না। শাসনতন্ত্রের পরিবর্তন না ঘটালে ফ্যাসিবাদী আওয়ামী লীগ সরকার জনগণকে ভবিষ্যতে আরও ভয়াবহ বিপদের মুখে ফেলে দেবে। এই সরকার যতদিন ক্ষমতায় থাকবে জনগণের দুর্ভোগ ক্রমাগত বাড়তেই থাকবে। এই সরকারকে বিদায় দিয়ে মানুষের পক্ষের সরকার প্রতিষ্ঠা করা এখন প্রধান কাজ।

গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা আরও বলেন, বর্তমান আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকার গণআন্দোলন গণজোয়ারে ইতোমধ্যে ভীত হয়ে পড়েছে এবং পুরনো সকল স্বেচ্ছাচারী পথ অবলম্বন করে প্রতিনিয়ত বিভ্রান্তি ও বিভেদ সৃষ্টির চেষ্টা করছে। কিন্তু কোনো মিথ্যাচার বা ষড়যন্ত্রই গণজোয়ার থামাতে পারবে না। বরং অতীত আমাদের শিক্ষা দেয় জনগণের ঐক্যবদ্ধ উত্থানই প্রবল স্বৈরাচারের পতন ঘটাতে পারে। ভোটাধিকার ও রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক রূপান্তরের লক্ষ্যে জনগণের ক্রমবর্ধমান বৃহত্তর ঐক্য, গণজাগরণ ও গণঅভ্যুত্থান বর্তমান সরকারের পতন ঘটাবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৪, ২০২৩
এমএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad