ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ মাঘ ১৪২৯, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮ রজব ১৪৪৪

রাজনীতি

গোলাপবাগ মাঠে গণসমাবেশের অনুমতি পাওয়ার কথা জানাল বিএনপি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৯, ২০২২
গোলাপবাগ মাঠে গণসমাবেশের অনুমতি পাওয়ার কথা জানাল বিএনপি

ঢাকা: রাজধানীর গোলাপবাগ মাঠে ১০ ডিসেম্বরের গণসমাবেশের অনুমতি পাওয়ার কথা জানিয়েছে বিএনপি। এই মাঠেই গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

তবে এ বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।

শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) বিকেলে ডিবি কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের এই কথা জানান বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন।

তিনি বলেন, আমাদের প্রত্যাশা ছিল আমরা কমলাপুর স্টেডিয়ামে গণসমাবেশ করব। সেখানে যেহেতু খেলা চলছে এবং কর্তৃপক্ষ আমাদের বলল অন্য একটা জায়গা আপনারা বিবেচনা করতে পারেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা গোলাপবাগ মাঠে আমরা আমাদের চয়েস দিই। আমাদের চয়েসের পরিপ্রেক্ষিতে তারা বলেছেন, লিখিতভাবে জানাতে। সেটা আমরা দিয়েছি। ওই জায়গায় গণসমাবেশ করার জন্য তারা আমাদের বলেছেন। গোলাপবাগ মাঠসহ আশেপাশের এলাকায় সার্বিক নিরাপত্তা বিধান করবে পুলিশ।

নয়াপল্টনে গণসমাবেশ করতে পারলেন না- এটি রাজনৈতিক পরাজয় কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ১০ ডিসেম্বর গণসমাবেশ হচ্ছে। আমাদের যেটা প্রত্যাশা ছিল যে, আমরা কমলাপুর স্টেডিয়ামে করব। খেলার কারণে তা সম্ভব হচ্ছে না।

দলের মহাসচিব ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যের গ্রেফতার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। আমরা আদালতে মোকাবিলা করবো। আইনিভাবে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এর আগে, শুক্রবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) খন্দকার গোলাম ফারুক  গোলাপবাগ মাঠ পরিদর্শন করেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

তিনি বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এবং গোয়েন্দা সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে আমরা এখানে এসেছি। সার্বিক বিষয়গুলো দেখলাম, শুনলাম। এখন এসব বিষয় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। পরে তারা যেভাবে সিদ্ধান্ত দেবেন সেভাবেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মূলত বিএনপির পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার রাতের বৈঠকে এ মাঠের প্রস্তাব ছিল। এ কারণেই আসা।

বিএনপিকে সোহরাওয়ার্দীতে গণসমাবেশের জন্য অনুমতি দিয়েছিল ডিএমপি। তবে বিএনপি চেয়েছিল নয়াপল্টনে করতে। এই আলোচনার মধ্যেই বুধবার বিকেলে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে কার্যালয়ে অভিযান চালায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এই সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপির কয়েকশ নেতাকর্মী গ্রেফতার হয়েছেন। গ্রেফতার হয়েছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ আরও অনেকে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৯, ২০২২

পিএম/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa