bangla news

প্রথমআলোর স্বার্থেই কি হাজার পাঠকের সামনে মিথ্যাচার?

|
আপডেট: ২০১১-১০-১৮ ৩:৫৬:৩৩ এএম

প্রিন্ট মিডিয়া বনাম অনলাইন মিডিয়া  কোন মিডিয়া বর্তমানে শক্তিশালী? ১৫ বছরের সংবাদপত্র পাঠক এবং প্রায় ৪বছরের ব্লগ পাঠক হিসেবে দাবি করব, নিঃসন্দেহে অনলাইন মিডিয়া শক্তিশালী। কেন শক্তিশালী এই প্রশ্নটি না করে প্রশ্নটি এভাবে করা যেতে পারে, কেন শক্তিশালী হবেনা?

প্রিন্ট মিডিয়া বনাম অনলাইন মিডিয়া  কোন মিডিয়া বর্তমানে শক্তিশালী? ১৫ বছরের সংবাদপত্র পাঠক এবং প্রায় ৪বছরের ব্লগ পাঠক হিসেবে দাবি করব, নিঃসন্দেহে অনলাইন মিডিয়া শক্তিশালী। কেন শক্তিশালী এই প্রশ্নটি না করে প্রশ্নটি এভাবে করা যেতে পারে, কেন শক্তিশালী হবেনা?

পাঠকের স্বার্থে ছোট্র একটি উদাহরণ না দিলেই নয়।বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এ `প্রথম আলোর কর্মীদের উতলে ওটা প্রেমের রহস্য কি ` প্রকাশের পর সাংবাদিক/ ব্লগার আসিফ এন্তাজ রবি’র একটি প্রতিবাদমূলক লেখা বাংলানিউজেই প্রকাশিত হয়েছে। কিছুক্ষনের মধ্যেই আমার মেইল বক্সে কয়েকটি মেইল আসে যাতে কয়েকজন পাঠক ব্যাপারটি দৃষ্টি আকর্ষণ করে লিখেছেন। তারা আসিফ এন্তাজ রবির বিরুদ্ধে মিথ্যাচরেরও অভিযোগ এনেছেন, যা আমারও মনে হয়েছে। প্রশ্ন একজন সাংবাদিক এমন মিথ্যাচার কোথা থেকে আমদানী করতে পারলেন?  `প্রথম আলোর কর্মীদের উতলে ওটা প্রেমের রহস্য কি ` লেখাটির বিরোধীতা করতে গিয়ে তিনি এসব মিথ্যাচার করেছেন।
 
প্রিয় পাঠক, এবার নিশ্চয় বুঝতে পারছেন যে কেন অনলাইন মিডিয়া শক্তিশালী। পত্রিকার পাঠকদের এখন যা ইচ্ছা তা খাওয়ানো যায় ।কারণ, পাঠকের মতামত লেখকের কাছে যেতে প্রিন্ট মিডিয়ায় যে কষ্টটুকু করতে হয় একজন পাঠককে সে কষ্টটুকু অনলাইন মিডিয়ায় করা লাগেনা। কয়েক মিনিটের একটি মেইল করেই লেখকের কাছে পৌঁছানো যায়।

আরেকটি উদাহরণ না দিয়ে পারছিনা।পারসোনা ইস্যুটিতে প্রথম আলোর সংবাদকর্মী এমনই `অনলাইনওয়াশ` হয়েছেন যে বাংলা ব্লগগুলোতে `যতই সেলিব্রেটি ব্লগার হওনা কেন দালালী করলে গদাম মিস নাই` বাক্যটি রীতিমত প্রবাদ বাক্যের মত হয়ে গেছে। অনলাইন মিডিয়া এতটাই শক্তিশালী যে পাঠকের ফিডব্যাক সরাসরি পৌঁছে যাচ্ছে ।

আসিফ এন্তাজ রবি আমার লেখাটিকে দূর্বল শিরোনাম আখ্যায়িত করেছেন তাতে আমার কোনো দুঃখ নেই । কারণ আমি বেতনধারী সাংবাদিক নই। লিখে কোথাও থেকে একটি টাকা নেয়নি। নিজেকে সাংবাদিক দাবিও করি না। আমার লেখা দূর্বল হতেই পারে হতেই পারে তাই আপনার দূর্বল শিরোনামের অভিযোগে আমার বিন্দুমাত্র দুঃখ নেই।

আমার দুঃখ কিংবা কষ্টের যায়গাটুকু যে আপনি একজন সাংবাদিক হয়ে কিভাবে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এর হাজার হাজার পাঠকের সামনে এমন মিথ্যাচার করতে পারলেন যে আমি আমার লেখাটির কোথাও সরাসরি কিংবা কৌশলে কোথাও লিখেছি যে পারসোনা ইস্যুকে আড়াল করতে আপনাদের এই কার্যক্রম। বাংলানিউজের হাজার হাজার পাঠককে সাক্ষী রেখে বলছি আপনি যদি ‘প্রথম আলো কর্মীদের উথলে ওঠা প্রেমের রহস্য কি?’- লেখাটির কোথাও দেখাতে পারেন যে আমি পারসোনা ইসুৎকে আড়াল করতেই আপনাদের এই কার্যক্রম এমন ঘৃন্য অভিযোগ করেছি তাহলে আমি ক্ষমা চাইব । আপনার কাছে ক্ষমা চাওয়া লেখাটি প্রকাশ করতে প্রয়োজনে আমি বাংলানিউজ এর সম্পাদকের কাছে হাতজোড় করে অনুরোধ করব। আর আপনি যদি দেখাতে না পারেন তাহলে আপনার কাছ থেকে আমি মিথ্যা অভিযোগের জন্য সরিও আশা করিনা।কারণ, আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের শাস্তি দেওয়ার জন্য আপনার বিবেকের দংশনই যথেষ্ট। অবশ্য আদৌ যদি আপনার বিবেক থেকে থাকে।

ম্যাজিক মুভমেন্টের একজন সক্রিয় সদস্য হয়ে আপনি যে মিথ্যা অভিযোগ আমার বিরুদ্ধে উপস্থাপন করলেন তাতে আপনাদের কার্যক্রম যে আরো প্রশ্নবোধক করে ফেললেন তা হলপ করে বলতে পারি একজন পাঠকের দৃষ্টিকোণ থেকে।বাংলানিউজকে ধন্যবাদ না দিলেই নয় যে আপনার প্রতিবাদটুকু ছাপিয়েছে।

ম্যাজিক মুভমেন্টের কর্মসূচির পর থেকে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় কর্মসূচির যে খবর এসেছে তাতে সৌদি বিচার ব্যবস্থার প্রতিবাদের ব্যাপারটি কতটুকু এসেছে ? সৌদি বিচার ব্যবস্থার সমালোচনার ব্যাপারটিকে সব মিডিয়া হাইলাইট করেছে কিন্তু আট বাংলাদেশির শিরচ্ছেদের দায়ভার কোনভাবেই বাংলাদেশ সরকার এড়াতে পারেনা। কেন এই সমালোচনার যায়গাটুকু খালি রাখা হয়েছে ? ব্লগে প্রথম আলোর কর্মী এবং অন্ধ সমর্থকদের  বিরুদ্ধে মাল্টিনিক ব্যবহার করে যে অশ্লীল ভাষায়  আক্রমন করার চিত্র দেখা গেছে  একজন প্রবাসী হিসেবে আমাদের শংকিত হতে হয়। কারণ দেশে বসে অনেক বড় বড় লেকচার দেওয়া যায়, যুদ্ধাপরাধের মত একটি ইস্যুকে ব্যবহার করে মতের অমিল হলেই রাজাকার উপাধি দিয়ে সুশীল সাজা যায় কিন্তু  প্রবাসের বাস্তবতা ভিন্ন।

পরিশেষে, এতটুকু বলব আর কোন নির্লজ্জ মিথ্যাচারের জবাব দিয়ে সময় নষ্ট করবনা। বাংলা নিউজ এ লেখা যেহেতু শুরু করেছি তাই পাঠকদের সামনে প্রবাসীদের নানা সমস্যা নিয়ে প্রতিবেদন করার চেষ্টা করব। পত্রিকায় প্রতিবেদন করে আতংকিত থাকতে হয় যে এডিট করে না আবার মুল ভাবটাই নষ্ট করে দেয় কিন্তু বাংলানিউজের কার্যক্রমে এতটুকু বিশ্বাস করতে পারছি যে আর যাই হউক প্রবাসীদের সুখ দুঃখের কথামালা কোনো সম্পাদকীয় নীতিতে আটকে দিবেনা।

shohanmurad@yahoo.com

বাংলাদেশ সময় ১৩৫০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৮, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মুক্তমত বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2011-10-18 03:56:33