ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ আশ্বিন ১৪২৯, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

সিটি করপোরেশনের আওতায় টিকা পাবে শিশুরা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫৩ ঘণ্টা, আগস্ট ১৫, ২০২২
সিটি করপোরেশনের আওতায় টিকা পাবে শিশুরা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা: ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী সব শিশুই করোনাভাইরাসের টিকা পাবে। সিটি করপোরেশনের আওতায় তাদের টিকা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

সোমবার (১৫ আগস্ট) দুপুর দেড়টায় রাজধানীর মহাখালীতে ক্যান্সার গবেষণা ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন।

জাহিদ মালিক বলেন, গত বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) শিশুদের করোনা টিকা দেওয়ার কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছি এবং ২৫ তারিখ থেকে পুরোদমে কার্যক্রম শুরু হবে। এজন্য আমরা সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। শিশুদের প্রথমেই সিটি করপোরেশনের আওতায় স্কুলগুলোয় টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, শিশুদের টিকা দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্য প্রটোকলের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। ডাক্তার-নার্স সেখানে উপস্থিত থাকবেন। টিকা নেওয়ার পর কেউ যদি অসুস্থ হয়, চিকিৎসার ব্যবস্থাও সেখানে রাখা হয়েছে। টিকা তারাই নিতে পারবে যারা নিবন্ধিত থাকবে। শিশুদের টিকা নেওয়ার নিবন্ধন কার্যক্রমও শেষ করতে বলা হয়েছে। শিশুরা সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমেই নিবন্ধিত হবে। শিশুদের টিকা দেওয়ার ক্ষেত্রে আমরা বিশেষভাবে মনোযোগী রয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী দুই কোটি ২০ লাখ শিশু রয়েছে। এই বয়সের শিশুরা যেখানেই থাকুক তাদের সকলকেই হিসাবে নেওয়া হয়েছে। ভাসমান শিশু হোক কিংবা স্কুলে সঠিকভাবে যেতে পারে না, তাদেরকেও টিকা দেওয়া হবে। বড়দের টিকাও আমরা সেভাবে দিয়েছি, প্রত্যন্ত অঞ্চলে এবং ভাসমান লোকদেরও আমরা টিকা দিয়েছি। শিশুদের ক্ষেত্রেও আমরা একই ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে কাজের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর প্রতি সবচেয়ে বড় সম্মান প্রদর্শন করা হবে, যদি তার স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য আমরা কাজ করি। শুধু আলোচনার মধ্যে দিয়ে নয় কাজের মধ্যে দিয়ে তার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হবে।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, কমিউনিটি ক্লিনিক ট্রাস্টের সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোদাচ্ছের আলী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার খুরশিদ আলম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবির, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব সাইফুল ইসলাম বাদল, অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেসা, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সেনাল প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময় : ১৪৫০ ঘণ্টা, ১৫ আগস্ট, ২০২২
আরকেআর/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa