ঢাকা, শুক্রবার, ২২ আশ্বিন ১৪২৯, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

যানজটে নাজেহাল রাজধানীবাসী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১৪, ২০২২
যানজটে নাজেহাল রাজধানীবাসী ছবি: রাজীন চৌধুরী

ঢাকা: ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বিমানবন্দর মোড়, বনানী থেকে বিমানবন্দরমুখী এবং উত্তরা থেকে বিমানবন্দরগামী উভয় সড়কে রয়েছে ভারী যানজট। অবশ্য এই সড়কে বিআরটি প্রকল্পের কাজ এখনো চলমান রয়েছে।

এ কারণে সড়কের তিনটি লেনে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। পাশে বর্তমানে চারটি লেন দিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। এতে দিন-রাত সব সময়েই এই সড়কে তীব্র যানজট লেগেই থাকছে।

ঢাকাগামী লেনে বিমানবন্দর মোড় থেকে উত্তরার জসিম উদ্দীন পর্যন্ত এবং গাজীপুরগামী লেনে লা মেরিডিয়ান থেকে বিমানবন্দর হয়ে জসিম উদ্দীন মোড় পর্যন্ত যানবাহনের জটলা সৃষ্টি হচ্ছে। এতে রোববার (১৪ আগস্ট) সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এই সড়কে তীব্র যানজট রয়েছে।

এদিকে যানজট যতটা সম্ভব নিরসনে পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সদস্যরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। সড়কে বেশিক্ষণ কোনো যানবাহনকে দাঁড়িয়ে থাকতে দিচ্ছেন না তারা।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক উত্তরা বিভাগ থেকে জানানো হয়- বিমানবন্দর সড়কে বিআরটি প্রকল্পের কাজ চলমাল রয়েছে। যার কারণে সড়ক সংকুচিত হয়ে গেছে। বর্তমানে তিনটি লেন বন্ধ রয়েছে। ফলে বিমানবন্দরগামী যাত্রীদের হাতে অতিরিক্ত সময় নিয়ে বের হবার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

সেই সঙ্গে এই সড়কে সৃষ্ট যানজট নিরসনে পুলিশের ট্রাফিক উত্তরা বিভাগের সদস্যরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে বলেও জানান কর্মকর্তারা।

শুধু বিমানবন্দর নয়, রাজধানীর সব সড়কেই যানজট রয়েছে। রাজধানীর বনানী-কাকলী, মহাখালী, সাতরাস্তা, মগবাজার, ফার্মগেট, কারওয়ান বাজার, বাংলামোটর, গুলশান, বাড্ডা, রামপুরা, মালিবাগ সব জায়গাতে যানজট দেখা গেছে।

বিমানবন্দর থেকে মতিঝিল যাবেন সোহেল মুন্সি নামে এক ব্যক্তি। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, সড়কে যানজট আর ভালো লাগে না। রাস্তায় বের হতে এখন অনেক কষ্ট লাগে। তারপরও জীবন চালাতে হয়, তাই অফিস যাই। এখন পরিবহনের ভাড়া বাড়ছে, দ্রসব পণ্যের দাম বাড়ছে, সড়কে যানজটের ভোগান্তিও বাড়ছে। কিন্তু অফিসতো বেতন বাড়ায় না। এভাবে চলতে আর ভালো লাগে না। কিন্তু আমরা সাধারণ মানুষ এখন সবখানেই জিম্মি।

তিনি আরও বলেন, সকালে বাসা থেকে বের হলে যানজট, অফিস থেকে ফেরার পথে যানজট। সকালে যাই ফিরতে রাত হয়ে যায়। সব সময় মাথায় একটা চাপ কাজ করে। এই নিয়ে সুস্থ ও সুন্দর জীবন যাপন করা সম্ভব হচ্ছে না।

এদিকে গণপরিবহন (বাস) চালকরা সড়কের মাঝেই বাস দাঁড় করিয়ে যাত্রী ওঠা-নামা করছেন। অনেক চালক যাত্রী নেওয়ার জন্য আগের বাসকে ওভারটেক করে সামনে বাঁকা হয়ে দাঁড়িয়ে থাকছে। এতে পেছনের বাস বের হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে না। এতেও সৃষ্টি হচ্ছে যানজট।

অপরদিকে সড়কের পাশে সারি সারি মোটরসাইকেলকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। এসব বাইকের চালকরা মোবাইল ভিত্তিক অ্যাপস উবার-পাঠাও এর মাধ্যমে যাত্রী তোলার জন্য দাঁড়িয়ে থাকছেন।

যদিও যাত্রীদের অভিযোগ- মোটরসাইকেল চালকরা এখন আর অ্যাপসের মাধ্যমে যেতে চান না। তারা চুক্তিতে যাত্রী নিচ্ছেন। ফলে এসব বাহনে চলাচলও অনেকটা অনিরাপদ হয়ে গেছে। যারা অ্যাপসের চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া দাবি করছেন, তারা তেলের দাম বৃদ্ধির দোহাই দিচ্ছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৫ ঘণ্টা আগস্ট ১৪, ২০২২
এসজেএ/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa