ঢাকা, শুক্রবার, ২২ আশ্বিন ১৪২৯, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

কাউয়াদীঘি হাওরের জলাবদ্ধতা নিরসনে কৃষকদের স্মারকলিপি

ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২১ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২২
কাউয়াদীঘি হাওরের জলাবদ্ধতা নিরসনে কৃষকদের স্মারকলিপি

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার মনু প্রকল্পের আওতাধীন কাউয়াদীঘি হাওরে পানি নিষ্কাশন না করায় রোপা আমন ধান রোপণ অনিশ্চিত হয়ে পড়ায় বিক্ষুব্ধ হয়ে পড়ছেন কৃষকরা।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) দুপুরে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে কৃষি ও কৃষি রক্ষা কমিটির উদ্যোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে মৌলভীবাজার সদর ও রাজনগর উপজেলার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।

বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার কৃষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জওহর লাল দত্ত, জেলা হাওর রক্ষা সংগ্রাম কমিটির সদস্য সচিব জুনেদ আহমদ চৌধুরী, হাওর রক্ষা সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক রাজন আহমদ, কৃষক ও ইউপি সদস্য জুবেল আহমদ, কৃষক হারুন মিয়া, আলমগীর হোসেন, খছরু চৌধুরী, হেলাল আহমদসহ অন্যান্যরা।

বক্তারা বলেন, নিরবিচ্ছিন্নভাবে এক সপ্তাহ পাম্প চালালে হাওরের জলাবদ্ধতা নিরসন হয়ে জমি আমন চাষের উপযোগী হবে। তারা এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী ও এলাকার অবৈধ মাছ চাষিদের দায়ী করেন। অবিলম্বে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেন। পরে কৃষকরা বিক্ষোভ মিছিল সহকারে জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি দেয়। এসময় জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান জলাবদ্ধতা নিরসনের মৌখিক আশ্বাস দেন।  

এদিকে মৌলভীবাজারের কাউয়াদীঘি হাওরের জলাবদ্ধতা নিরসনে বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা প্রশাসকের বাসভবনে জরুরি বৈঠক করেছেন জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান।  

এসময় জেলা প্রশাসক কৃষকদের দাবির প্রতি একাত্মতা পোষণ করেন। আমন চাষে কোনো বাঁধা  হতে দেওয়া যাবে না বলে তিনি মত প্রকাশ করেন এবং আগামী ১০ দিনের মধ্যে জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য করনীয় নির্ধারণ করা হবে বলে জানান জেলা প্রশাসক।
 
বাংলাদেশ সময়: ১১১৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২২
বিবিবি/এনএইচআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa