ঢাকা, বুধবার, ২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১৮ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

শেখ কামালের জীবন থেকে শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান স্পীকারের

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫৭ ঘণ্টা, আগস্ট ৭, ২০২২
শেখ কামালের জীবন থেকে শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান স্পীকারের

ঢাকা: বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশের আধুনিক ক্রীড়াঙ্গনের রূপকার শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে লন্ডনের বাংলাদেশ হাই কমিশন আয়োজিত এক স্মারক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী শেখ কামালের বর্ণাঢ্য জীবন ও কর্ম অনুসরণ করে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি তরুণ প্রজন্মকে ক্রীড়া ও সংস্কৃতি চর্চার মধ্য দিয়ে শান্তি ও সহনশীলতার শিক্ষা গ্রহণের আহ্বান জানান।

শনিবার (৬ আগস্ট) লন্ডনের বাংলাদেশ হাইকমিশন এ তথ্য জানায়।

স্পীকার বলেন, বাংলাদেশের ছাত্র ও যুব সমাজের কাছে এক অসাধারণ ও অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব শেখ কামাল খেলার মাঠ থেকে নাটকের মঞ্চ, সংগীত জগত এবং সদ্য-স্বাধীন দেশে তরুণদের সুসংগঠিত করতে যে অতুলনীয় অবদান রেখেছেন তা বিশ্বের যেকোনো দেশের তরুণ সমাজকে গভীরভাবে প্রভাবিত ও অনুপ্রাণিত করবে।

শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের নামে বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডন প্রবর্তিত পুরস্কারকে একটি সময়োপযোগী উদ্যোগ হিসেবে উল্লেখ করে স্পীকার বলেন, এই পুরস্কার ব্রিটিশ-বাংলাদেশি তরুণ প্রজন্মকে শেখ কামালের জীবন ও কর্ম সম্পর্কে জানতে ও অনুপ্রাণিত হতে আরও উৎসাহিত করবে।

যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীমের সভাপতিত্বে বাঙ্গালি অধ্যুষিত পূর্ব-লন্ডনে আয়োজিত এই স্মারক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম, এমপি, বলেন, বাংলাদেশের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য, ইতিহাস এবং সর্বোপরি মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সদ্য-স্বাধীন দেশের পূর্ণগঠনে তরুণ সমাজকে সুসংগঠিত করে ক্যাপ্টেন শেখ কামাল যে অসামান্য অবদান রেখে গেছেন সেজন্য তিনি চির অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় হয়ে থাকবেন।

স্বাগত বক্তব্যে হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল ক্রীড়াঙ্গন ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ছিলেন একজন ট্রেন্ড সেটার, ভিসনারি ও আইকন। তাঁর প্রতিষ্ঠিত শক্ত ভিত্তির ওপরই আজ বাংলাদেশ বিশেষ করে বিশ্ব-ক্রীড়াঙ্গনেও গৌরবোজ্জ্বল অবস্থান অর্জন করেছে।

যুক্তরাজ্যে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সুলতান মাহমুদ শরীফ ও বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা মাহমুদ হাসান এমবিই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে শেখ কামালের সহপাঠী ও ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবং জাতীয় অলিম্পিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাম্বাসেডর সৈয়দ শাহেদ রেজা ও ব্রিটিশ-বাংলাদেশি কমিউনিটির সিনিয়র ব্যক্তিত্ব সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুকসহ বাংলাদেশি ক্রীড়া ও সংস্কৃতি অনুরাগী ব্রিটিশ-বাংলাদেশি তরুণ মিরাজ সাদাত ও ব্রিটিশ-ইউক্রেনিয়ান তরুণ আলবার্ট এডওয়ার্ড সালিমোভ অংশ নেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে হাই কমিশনার অতিথি এবং দূতাবাসের কর্মকর্তাদের নিয়ে শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণের মাধ্যমে তাঁর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান। এরপর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুসহ ১৫ আগস্ট ১৯৭৫- এর শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে ও তাঁদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মুনাজাত করা হয়। অতঃপর হাই কমিশনার স্পিকার, মন্ত্রী ও অতিথিদের নিয়ে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের ওপর বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডন আয়োজিত এক বিশেষ আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে শেখ কামালের জীবনের ওপর যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। সকালে হাই কমিশনে দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫৮ ঘণ্টা, আগস্ট ০৭, ২০২২
টিআর/কেএআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa