ঢাকা, বুধবার, ২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১৮ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

সালথায় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে স্কুল মাঠে গরুর হাট

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৩৩ ঘণ্টা, জুলাই ৬, ২০২২
সালথায় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে স্কুল মাঠে গরুর হাট

ফরিদপুর: ফরিদপুরের সালথা উপজেলায় প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে একটি স্কুল মাঠে পশুর হাট বসানোর ঘটনা ঘটেছে। এ কারণে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে শোকজ (কারণ দর্শানোর নোটিশ) করেছেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা।

বুধবার (৬ জুলাই) সকালে সালথার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোছা. তাছলিমা আকতার বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, শনিবার (২ জুলাই) উপজেলার আটঘর ইউনিয়নের নকুলহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে উপজেলা প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই পশুর হাট বসে। যদিও প্রতি বুধবার সেখানে পশুর হাট বসতো। কিন্তু পবিত্র ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে শনিবারেও হাট বসানো হয়েছিল।

এর আগে গত শুক্রবার (১ জুলাই) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে কোরবানি ঈদ উপলক্ষে সালথা উপজেলায় বিভিন্ন হাট-বাজারের পেরিফেরির বাইরে এবং সরকারি প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব জায়গায় অস্থায়ী পশুর হাট না বসানো প্রসঙ্গে একটি নোটিশ জারি করা হয়েছিল। কিন্তু সেই নির্দেশনা অমান্য করে তার পরের দিনেই এ হাট বসানো হয় বলে জানা গেছে। এতে স্থানীয় জনমনে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

উপজেলা সূত্রে জানা যায়, নকুলহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠের পশু হাট বন্ধ করার নির্দেশনা দেওয়ার পরও উক্ত বিদ্যালয়ের মাঠে পশুর হাট বসানো বিষয়টিতে প্রধান শিক্ষিকাকে শোকজ (কারণ দর্শানোর নোটিশ) করা হয়েছে।

এ বিষয়ে হাট ইজারাদার ও ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষিকার স্বামী মো. জাকির মোল্লা বলেন, বিষয়টি আমি এবং আমার স্ত্রী আগে জানতাম না। ঘটনার পরে সোমবার (৪ জুলাই) বিষয়টি আমরা জানতে পেরেছি।

তিনি আরও বলেন, আমি আগে থেকে জানলে হাট বসাতাম না। আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। গত ৪ জুলাই শোকজের চিঠি পাওয়ার পরে মঙ্গলবার (৫ জুলাই) শোকজের উত্তর দিয়েছি।

ইউএনও মোছা. তাছলিমা আকতার বাংলানিউজকে বলেন, নকুলহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে পশুর হাট বসানোর বিষয়টি বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পারি। কিন্তু স্কুলের মাঠে শিশু-কিশোররা খেলাধুলা করে। হাট বসানোতে পশুর মলমূত্র দিয়ে মাঠে নোংরা ও দুর্গন্ধ হওয়ায় কেউ আসতে পারে না। এ বিষয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে সত্যতা যাচাই করে বিনা অনুমতিতে স্কুলের মাঠে হাট বসানোর বিষয়টিতে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়।

তিনি আরও বলেন, এর পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার কৃষ্ণচন্দ্র চক্রবর্তী মঙ্গলবার বিকেলে ওই স্কুল পরিদর্শন করে হাটে পশু বাঁধার খুটি তুলে ফেলেন এবং হাট না বসানোর জন্য প্রধান শিক্ষিকাকে সতর্ক করেছেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৩২ ঘণ্টা, জুলাই ০৬, ২০২২
এফআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa