ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ আগস্ট ২০২২, ১০ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে নিয়ে লাপাত্তা শিক্ষক!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭২৪ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২২
১০ম শ্রেণির ছাত্রীকে নিয়ে লাপাত্তা শিক্ষক!

রাজশাহী: রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে নিয়ে পালিয়ে গেছেন শিক্ষক। তারা তিন দিন থেকে লাপাত্তা রয়েছেন।

 

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে পুঠিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। তবে এখনও তাকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

নিখোঁজ স্কুলছাত্রীর পরিবারের বরাত দিয়ে রাজশাহীর পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাওয়াদী হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, গত বুধবার (২৯ জুন) এ ঘটনা ঘটেছে। ওই দিন সকালে প্রতিদিনের মতো ওই ছাত্রী স্কুলে যায়। তবে স্কুল শেষে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। এরপর তার পরিবার ওই ছাত্রীকে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। তবে তার সহপাঠীদের মাধ্যমে জানতে পারেন, শিক্ষক ওই ছাত্রীকে নিয়ে পালিয়ে গেছেন। পরে তার বাবা থানায় গিয়ে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ করেন। পরে তা সাধারণ ডায়েরি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

পুঠিয়া থানার ওসি আরও বলেন, ওই ছাত্রীর বাবার জিডির পর থেকে পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। তবে এখন পর্যন্ত ওই ছাত্রী বা শিক্ষকের কোনো সন্ধান মেলেনি। তারা ওই ছাত্রী-শিক্ষকের সন্ধানের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও উল্লেখ করেন পুঠিয়া থানার ওসি।

এছাড়া পুঠিয়ার ঝলমলিয়া উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন- গত বুধবার (২৯ জুন) ওই শিক্ষক ও ছাত্রী বিদ্যালয়ে ছিলেন। কিন্তু স্কুলের ক্লাশ শেষে তারা আর বাড়ি ফিরে যান নি। সন্ধ্যা পর্যন্ত বাড়িতে না ফেরায় উভয় পরিবারের লোকজন তাদের খোঁজ-খবর শুরু করেন। তিনি ওই স্কুলের ইংরেজি বিভাগের সহকারী শিক্ষক। আর একজন শিক্ষকের এমন আচরণের পর তারাও বিব্রত। বিষয়টি প্রমাণ হলে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

এদিকে, ওই স্কুল শিক্ষক এর আগেও দুইটি বিয়ে করেছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। এরপর দ্বিতীয় স্ত্রী নিয়ে তিনি এতদিন সংসার করছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২২ ঘণ্টা, জুলাই ০২, ২০২২
এসএস/এসএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa