ঢাকা, শনিবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৩ আগস্ট ২০২২, ১৪ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

জামালপুরে আবারও বন্যার আশঙ্কা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৪ ঘণ্টা, জুলাই ১, ২০২২
জামালপুরে আবারও বন্যার আশঙ্কা

জামালপুর: উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে অব্যাহতভাবে পানি বাড়ায় জামালপুরে আবারও বন্যার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে ২০ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৫০ সেমি নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

যমুনার পানিবাড়তে থাকায় ফের বন্যার আশঙ্কায় চিন্তিত নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলের মানুষ।

এর আগে গত কয়েকদিনে বন্যার পানি কিছুটা কমতে শুরু করলে নদীভাঙন এলাকায় ভাঙন দেখা দেয়। বিলীন হয়ে যায় আবাদি জমি ও বেশ কয়েকটি বসতবাড়ি।

বন্যার্ত এলাকায় খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, বন্যা দুর্গত এলাকায় ঈদের আমেজ নেই। বন্যার পানি কমলেও তারা তাদের বাড়িঘরে ফিরতে পারছেন না। এরই মধ্যে আবারও পানি বাড়তে থাকায় বন্যার্ত মানুষের জীবনযাপন কষ্টকর হয়ে পড়েছে।
জেলা প্রশাসনের তথ্যমতে, জেলার ৫টি উপজেলার ৩২টি ইউনিয়নের ৯৩টি গ্রাম বন্যাকবলিত হয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৫ হাজার ১৬৭টি পরিবার। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা ১৭ হাজার ৭৩৮। ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির সংখ্যা ৩ হাজার ৭১২। আশ্রিত লোকের সংখ্যা ৯ হাজার ৬৪৮। ১ হাজার ৯৪৪ হেক্টর ফসল ক্ষতি হয়েছে।
জামালপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সাঈদ জানান, দুইএক দিন বৃষ্টি হওয়ায় পানি কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনারপানি বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে ২০ সেমি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৫০ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে এভাবে পানি বৃদ্ধি পেলে কয়েদিনের মধ্যে বিপৎসীমার ওপরে  চলে আসবে বলেও জানান তিনি।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসাইন বলেন, এ পর্যন্ত বন্যার্ত এলাকায় ৩৮৫ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। নদীভাঙন এলাকায় সাড়ে ৮ লাখ টাকা এবং পরবর্তীতে আরও ক্ষয়ক্ষতির কথা চিন্তা করে মোট ১৮ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বন্যার্ত এলাকায় ৬ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৩ ঘণ্টা, জুলাই ০১, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa