ঢাকা, বুধবার, ২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১৮ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা, বরিশালে বাস ভাড়ায় হেরফের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৪০ ঘণ্টা, জুন ২৬, ২০২২
পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকা, বরিশালে বাস ভাড়ায় হেরফের রোববার সকাল থেকেই বরিশাল কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল ছিল যাত্রীদের চাপ

বরিশাল: উদ্বোধনের পর পদ্মা সেতু হয়ে বরিশাল থেকে ঢাকার সায়েদাবাদ ও গুলিস্তানমুখী যাত্রীদের চাপ বেড়েছে কয়েক গুণ। রোববার (২৬ জুন) সকাল থেকেই বরিশাল কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নথুল্লাবাদে যাত্রীদের চাপ ছিল চোখে পড়ার মতো।

যদিও যাত্রীদের অভিযোগ পরিবহন ভেদে ভিন্ন ভিন্ন ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। আর পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নতুন ভাড়ার তালিকা এখনও না পাওয়ায় তারা তাদের পূর্বের নির্ধারিত ভাড়া আদায় করছেন।

তবে বরিশাল-মাদারীপুর ও ফরিদপুর মালিক সমিতির আওতায় পরিচালিত বিএমএফ পরিবহনের ভাড়া ঢাকা-বরিশাল রুটের লঞ্চের ডেকের ভাড়ার চেয়েও কম নেওয়া হচ্ছে।

বিএমএফ পরিবহনের কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা উৎপল বসু নয়ন বলেন, সকাল থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ডজনখানেক বাস যাত্রী নিয়ে ঢাকার যাত্রাবাড়ীর উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছে। জনপ্রতি ৩৫০ টাকা ভাড়া নেওয়া বাসের একটি সিটও খালি ছিল না। সকালের প্রথম দুটি গাড়ি ঠিক সাড়ে ৩ ঘণ্টায় যাত্রাবাড়ীতে পৌঁছেছে।

এদিকে বিএমএফ পরিবহনের যাত্রী সোলাইমান জানিয়েছেন, বরিশাল থেকে ঢাকার লঞ্চের ডেকের ভাড়া বর্তমানে ৪০০ টাকা রাখা হয়। সেখানে সাড়ে ৩৫০ টাকায় মাত্র কয়েক ঘণ্টার যাত্রায় ঢাকায় পৌঁছাতে পারব। এর থেকে ভালো কিছু হতে পারে না!

অপরদিকে সাকুরা পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার আনিসুর রহমান বলেন, বরিশাল থেকে পদ্মা সেতু ও সায়েদাবাদ হয়ে টেকনিক্যাল পর্যন্ত তাদের বাস চলাচল করবে। নন এসি বাসে জনপ্রতি ভাড়া ৪৪৫ টাকা ও এসি বাসে ৭০০ টাকা রাখা হচ্ছে। বর্তমানে বরিশাল থেকে গাবতলীমুখী যাত্রীদের চাপ নেই বললেই চলে, সবাই পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় যেতে চাচ্ছেন। এমনকি মানিকগঞ্জ, নবীনগর ও সাভার এলাকার লোকজনও এ রুটের টিকিট চাচ্ছেন। অনেক গাড়ির টিকিট আগেই বুকিং হয়ে যাওয়ায় শেষ মুহূর্তে আসা যাত্রীদের টিকিট দিতে পারছি না।

হানিফ পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার আ. সালাম খান বলেন, বরিশাল থেকে পদ্মা সেতু হয়ে ঢাকায় যাত্রীদের চাপ বেশি। এ রুটে আসন প্রতি ভাড়া বর্তমানে ৪৫০ টাকা রাখছি। বরিশাল থেকে পাটুরিয়া ঘাটে ফেরি পার হয়ে ঢাকার ভাড়া ৫০০ টাকা। তবে এই রুটের বাসগুলোতে আজ তেমন যাত্রী নেই।

তিনি বলেন, এ মুহূর্তে আমরা নন এসি বাস দিয়ে যাত্রীসেবা দিচ্ছি। অল্পদিনের মধ্যেই এসি বাসের সেবাও দেবো।

পদ্মা সেতু হয়ে বরিশাল-ঢাকা রুটে নতুন আসা প্রচেষ্টা পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার মনির হোসেন জানান, তাদের সকল বাস এসি এবং এগুলো সায়েদাবাদ হয়ে আব্দুল্লাহপুর পর্যন্ত যাবে। যাত্রীরা যে কোনো জায়গাতে নামতে পারবেন। প্রথম দিনেই যাত্রীদেরর সাড়া পাওয়া গেছে। ভাড়ার তালিকা না পাওয়ায় এসি বাসে যাত্রীপ্রতি ভাড়া ৮০০ টাকা নেওয়া হচ্ছে। তবে ভাড়া আরও কমে যাবে।

বরিশাল থেকে কাঁঠালবাড়ি পর্যন্ত চলাচলকারী বিআরটিসি বাসগুলো সকাল থেকেই ঢাকার গুলিস্তানের উদ্দেশে যাত্রী পরিবহন শুরু করেছে। সকাল থেকে প্রতিটি বাসই যাত্রী বোঝাই হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন বিআরটিসির বরিশাল বাস ডিপোর ম্যানেজার মো. জাহাঙ্গীর আলম।

তিনি বলেন, রোববার এমনিতেও ঢাকামুখী যাত্রীদের চাপ থাকে। তাই আজ একদিনের হিসেবে সবকিছু বলা যাচ্ছে না। তবে আজ কর্মস্থলমুখী যাত্রীদের পাশাপাশি পদ্মা সেতু দেখতে যাওয়া মানুষের সংখ্যাও কম ছিল না। আপাতত বরিশাল ডিপো থেকে ১৪টি এসি বাস দিয়ে এ রুটে যাত্রীসেবা দেওয়া হচ্ছে। কোনো নন এসি বাস নেই। এসি বাসে আসনপ্রতি ভাড়া রাখা হচ্ছে ৫০০ টাকা।

সকালে বাস টার্মিনালে টিকিট না পেয়ে মাহামুদুল হক নামে এক যাত্রী বলেন, ঢাকা যেতে সকাল ৮টায় নথুল্লাবাদের কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে এসেছি। বিআরটিসি বাস কাউন্টারে এসে দেখি টিকিটের জন্য দীর্ঘ লাইন। এরপর হানিফ, ঈগল ও সাকুরা পরিবহনের কাউন্টারে জিজ্ঞাসা করে দেখলাম তাদের কোনো টিকিট নেই। অথচ পদ্মা সেতু হওয়ার আগেও কাউন্টারে যখন-তখন এসে টিকিট পাওয়া যেতো। তাই এখন ইলিশ ও ঈগলের কাউন্টারে টিকিট খুঁজছি।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৫ ঘণ্টা, জুন ২৬, ২০২২
এমএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa