ঢাকা, বুধবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

জাতীয়

মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে জখম, আ.লীগ নেতা কারাগারে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৪ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২২
মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে জখম, আ.লীগ নেতা কারাগারে আহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বার।

বরগুনা: বরগুনায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বীর মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে জখম করার মামলায় আওয়াল নামে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৪ মে) দুপুরে বরগুনার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ মাহবুব আলম এ আদেশ দেন।

আসামি আউয়াল সদর উপজেলার আয়লা পাতাকাটা ইউনিয়নের সেকান্দার আলীর ছেলে এবং ওই ইউনিয়নের এক নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২৩ এপ্রিল সকালে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বারের ভাতিজা জহিরুল ইসলামের ক্ষেতের মুগডাল খাওয়াকে কেন্দ্র করে ঝগড়া হয়। সেদিন বিকেল ৫টায় আউয়াল আবদুল জব্বারকে তার ঘরে ডাকেন। আলাপের এক পর্যায়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় উত্তেজিত হয়ে আবদুল জব্বারকে খুনের উদ্দেশ্য লোহার রড ও কোদাল দিয়ে মাথায় এবং পায়ে কুপিয়ে, পিটিয়ে রক্তাক্ত করেন আউয়াল।

এ ঘটনায় রোববার বীর মুক্তিযোদ্ধার ছেলে রিপন বাদী হয়ে মামলা করেন। সেই মামলায় আওয়ামী লীগ নেতা আউয়ালের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির হলে আবেদন না মঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বার বলেন, আমি অনেক খুশি। বিচারক ন্যায় কাজ করেছেন। আমরা যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। এখন স্বাধীন দেশে মার খাচ্ছি। আউয়াল তার মেয়েদের দিয়ে আমার নাতিদের নামে একটি মিথ্যা মামলা করেছে।

আউয়ালের আইনজীবী মো. নুরুল আমিন বলেন, আমার মক্বেল বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বারকে আহত করেননি। তার নাতিরা অপরাধ করেছে সে জন্য মামলা করেছেন।

বাংলাদেশ সময়: ২২৪৫ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২২
এনএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa