ঢাকা, বুধবার, ২১ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

জাতীয়

কমতে শুরু করেছে সুনামগঞ্জে বন্যার পানি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট   | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫০ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২২
কমতে শুরু করেছে সুনামগঞ্জে বন্যার পানি

সুনামগঞ্জ: পাহাড়ি ঢল ও টানা বৃষ্টিতে সুনামগঞ্জের নদ নদীর পানি এখনও বিপৎসীমার ওপরে থাকলেও বিগত দিনের চেয়ে পানি অনেকটাই কমেছে।  

শনিবার (২১ মে) দুপুরের দিকে জেলা সদরে সুরমা নদীর পানি বিপৎসীমা ২ সেন্টিমিটার ও ছাতকে ১ দশমিক ১৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানা গেছে।

এদিকে, সুনামগঞ্জ পৌর শহরের মানুষজনের ঘর থেকেও কিছুটা পানি কমতে শুরু করলেও ড্রেনেজ সমস্যা কারণে পানি সরছে না বলে দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের।  

সুনামগঞ্জ পৌর শহরের নতুনপাড়া এলাকার বাসিন্দা সঞ্জয় রায় বাংলানিউজকে বলেন, বন্যায় হাওরের পানি জেলা শহরে প্রবেশ করে স্থির হয়ে থেকে যায়, এটার মূল কারণ শহরটির সবগুলো ড্রেন ময়লায় পরিপূর্ণ।

শান্তিবাগ এলাকার বাসিন্দা ঝন্টু বর্মন বলেন, বন্যার পানির সঙ্গে তিনদিন ধরিয়া (ধরে) আছি। পানি না নামি যাওনে অনেক কষ্ট করি কাম-কাজও যাওয়া লাগের।

অন্যদিকে, হাওরের নিম্নাঞ্চল এলাকায় পানি এখনও না কমায় বিভিন্ন জায়গায় আশ্রয় নিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগিতায় খাবার পাঠাচ্ছে জেলা প্রশাসন।  

সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) জাহাঙ্গীর হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, ছাতক দোয়ারার বন্যার্ত পরিবার প্রতি ১০ কেজি করে জিআরের (খাদ্য ও অর্থ সহায়তা কর্মসূচি) চাল পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। এই দুই উপজেলায় ৪০ টনসহ জেলার ১১ উপজেলায় ১৪০ টন চাল, নগদ ১২ লাখ টাকা এবং ২ হাজার বস্তা শুকনো খাবার বিতরণের জন্য দেওয়া হয়েছে।  

ত্রাণ সহায়তা বিতরণ অব্যাহত আছে বলেও জানান ডিসি জাহাঙ্গীর হোসেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সুনামগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শামসুদ্দোহা বাংলানিউজকে বলেন, শনিবার সকাল থেকে পানি কমতে শুরু করেছে। এটি ভালো, তবে মেঘালয়ে যদি বৃষ্টি হয় তাহলে, আবারও বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫০ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২২
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa