ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

নারী নির্যাতন মামলায় ইডিসিএলের ডিজিএম গ্রেপ্তার

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২২
নারী নির্যাতন মামলায় ইডিসিএলের ডিজিএম গ্রেপ্তার মো. শফিকুল ইসলাম বারী -ফাইল ছবি

খুলনা: খুলনা অ্যাসেনসিয়াল ড্রাগস লিমিটেডের (ইডিসিএল) ডিজিএম (প্রশাসন) মো. শফিকুল ইসলাম বারীকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে করা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে  বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারী) রাত ১০টার দিকে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থানার দক্ষিণ চন্ডিবর্দির গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয় তাকে।

নগরীর খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রবীর কুমার বিশ্বাস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  

এর আগে খুলনা অ্যাসেনসিয়াল ড্রাগসের ভাণ্ডার বিভাগের এক নারী কর্মী  (২৬) বাদী হয়ে  গত ২২ ফেব্রুয়ারি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে  খানজাহান আলী থানায় তার নামে নির্যাতনে মামলা করেন (মামলা নম্বর ১৩)।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বাদী ২০১৯ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি খুলনার আটরা গিলাতলা ইউনিয়নের মাত্তমডাঙ্গাস্থ অ্যাসেনসিয়াল ল্যাটেক্স প্লান্টে  শ্রমিক পদে যোগ দেন। ১ বছর আগে  মো. শফিকুল বারী ডিজিএম (প্রশাসন) হিসেবে বগুড়া অফিস থেকে ওই প্রতিষ্ঠানে যোগ দেন। এরপর ডিউটিরত অবস্থায় মো. শফিকুল বারী বিভিন্ন কাজের অজুহাতে বাদীর কাছে আসতেন এবং কাজের ক্ষেত্রে অফিসের বিভিন্ন জায়গায় দেখা হলে বাদীকে কু-প্রস্তাব দিতেন। এ অবস্থায় বাদী তাকে সবসময় এড়িয়ে চলতেন। গত ১ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টার দিকে  বাদী প্রতিষ্ঠানের ভাণ্ডার বিভাগে ষ্টেশনারি শাখায় কাজ করছিলেন। হাতের কাজ শেষ করে  ওয়াশ রুমে যাওয়ার সময়  আসামি তাকে দেখামাত্র  ডাক দিয়ে বিভিন্ন অশ্লীল কথা-বার্তা বলার এক পর্যায়ে  জাপটে ধরে এবং শ্লীলতাহানি করে। ঘটনার দিনই  প্রতিষ্ঠানের প্রধান ডিজিএম (করখানা) মো. মনিরুল ইসলামকে বিষয়টি  লিখিতভাবে জানান বাদী।

এদিকে এ ঘটনার পর থেকে খুলনা অ্যাসেনসিয়াল ড্রাগস লিমিটেডের (ইডিসিএল) নারী কর্মীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করতে শুরু করে । পরিস্থিতি খারাপ  দেখে কৌশলে প্রতিষ্ঠান থেকে বের হয়ে যান ডিজিএম মো. শফিকুল ইসলাম  বারী। এরপর থেকে কর্মস্থলে অনুপস্থিত ছিলেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৯ ঘণ্টা, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২২
এমআরএম/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।