ঢাকা, বুধবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ মে ২০২২, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

হাসপাতাল ছেড়েছে সাকিরা, হঠাৎ হঠাৎ বলছে মা-বাবাকে দেখব

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৫৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
হাসপাতাল ছেড়েছে সাকিরা, হঠাৎ হঠাৎ বলছে মা-বাবাকে দেখব

ঢাকা: রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানার মাতুয়াইলে সড়ক দুর্ঘটনায় মা-বাবা ও নানাকে হারানো সাকিরা আক্তার মিষ্টি (৬) এখন সুস্থ তাই চিকিৎসকরা তাকে বাড়ি যাওয়ার জন্য ছাড়পত্র দিয়েছেন। হাসপাতাল ছাড়ার সময় সে খুব খুশি, মা-বাবার কাছে যাচ্ছে! কিন্তু তারা যে দুনিয়াতেই নেই, বিষয়টা এখনও জানানো হয়নি সাকিরাকে।

মঙ্গলবার (২৫জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে সাকিরা তার মামা  নজরুল ইসলামের সঙ্গে মাতুয়াইলের বাসায় চলে যায়।

নজরুল ইসলাম বলেন, সুস্থ হওয়ায় সাকিরাকে মঙ্গলবার ছাড়পত্র দিয়েছেন চিকিৎসকরা। আমরা এখন মাতুয়াইলের বাসায় যাচ্ছি। তবে এখনও মা-বাবা ও নানার মৃত্যুর খবর জানে না সে। মাঝে মাঝে মায়ের কথা জিজ্ঞাসা করলে বলা হতো অসুস্থ নানীর দেখভাল করছেন মা, তার কাছে আসতে পারবে না। তবে হঠাৎ হঠাৎ খুবই খুশি মনে বলেছে,আমি মায়ের কাছে যাচ্ছি, আমি বাবাকে দেখব।

তিনি বলেন, হাসপাতালে ভর্তি থাকাকালীন সাকিরা অনেকবারই মা ও নানীর কাছে যেতে চেয়েছে। অনেক খেলার সামগ্রী দিয়ে তাকে ভুলিয়ে রাখা হতো। তাকে নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তার মধ্যে আছি। যদি বাসায় গিয়ে মা-বাবাকে দেখতে চায়! তখন আমরা কী জবাব দেব? কীভাবে নিষ্পাপ শিশুটিকে বুঝাব- কিছুই মাথায় আসছে না।

নজরুল ইসলাম বলেন, আমার অসুস্থ মা সাহেদা বেগমকেও  জানানো হয়নি বাবা,  বোন ও বোন জামাইয়ের মৃত্যুর সংবাদ।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) সকাল ৭টার দিকে মাতুয়াইলে বাসের ধাক্কায় প্রাণ হারিয়েছেন সাকিরার বাবা রিয়াজুল খান (৪০), মা শারমিন আক্তার (৩২) ও নানা আবদুর রহমান ব্যাপারী (৬০)। ঘটনার সময় সিএনজিতে সেও তাদের সঙ্গে ছিল। সেদিন তাকে আহত অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার সুস্থ হয়ে  মামার সঙ্গে হাসপাতাল ত্যাগ করেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৮ ঘণ্টা, ২৫ জানুয়ারি, ২০২২
এজেডএস/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa