ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

ভিকটিম সার্পোট সেন্টারে তরুণীর মৃত্যু, প্রেমিক গ্রেফতার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২২২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
ভিকটিম সার্পোট সেন্টারে তরুণীর মৃত্যু, প্রেমিক গ্রেফতার

রংপুর: প্রেমিকের সন্ধানে ঝিনাইদহ থেকে রংপুরে এসে মেট্রোপলিটন ভিকটিম সার্পোট সেন্টার থেকে রুহি আক্তার রুহি (১৯) নামে তরুণীর মৃত্যুর ঘটনায় প্রেমিক মিথুনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের দুই সদস্যকে প্রত্যাহার করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে মেট্রোপলিটন পুলিশ।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় প্রেমিক মিথুন ওরফে আকাশকে গঙ্গাচড়া উপজেলা থেকে গ্রেফতার করে।  

মিথুন ওই উপজেলার ধামুর মুন্সিপাড়া এলাকার ইবাদত আলীর পুত্র। সে আকাশ নাম ধারণ করে ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেম করছিল।  

এদিকে এ ঘটনায় মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা কার্যালয়ে সোমবার রাতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে এ ঘটনার সর্বশেষ পদক্ষেপ বিষয়ে ব্রিফিং করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ড এলাকার সেকেন্দার আলীর মেয়ে  রুহি আক্তারের সঙ্গে রংপুরের আকাশ নামে এক যুবকের মোবাইলফোনে প্রেমের সম্পর্ক হয়। সেই সূত্রধরে প্রেমিক তাকে শনিবার রংপুরে আসতে বলে। রুহি আক্তার ফোন পেয়ে ঝিনাইদহ থেকে রংপুরে আসেন। রংপুর নগরীর সাহেবগঞ্জ এলাকায় পৌঁছে আকাশের মোবাইলফোনে কল দিয়েও যোগাযোগ করতে পারেনি। পরে রুহি ওই এলাকায় ঘোরাফেরা করতে  থাকলে শনিবার রাতে এলাকাবাসী ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেন। পরে হারাগাছ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে রুহিকে উদ্ধার করে কোতোয়ালী থানার ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে পাঠায়।

সেখানে অবস্থানের দ্বিতীয় দিন রোববার রাতে সিলিংয়ে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন রুহি। পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

এদিকে ঘটনায় দুই পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। দায়িত্বে অবহেলার কারণে এএসআই নাদীরা আক্তার ও কনস্টেবল আফরোজা বেগমকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

 এদিকে ঘটনা তদন্তে মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মেনহাজুল আলম ও সহকারী পুলিশ কমিশনার (সিটিএসবি) মাহব-উল-আলম।

মেট্রোপলিটন কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি- তদন্ত) হোসেন আলী জানান, ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের বৈদ্যুতিক পাখায় ফাঁস দিয়ে ওই তরুণী আত্মহত্যা করেছে। দুপুরে তার মরদেহ ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ বিষয়ে একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে। গ্রেফতার মিথুনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২২১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
এনএইচআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa