ঢাকা, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২২ মে ২০২২, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

শিশুশ্রম বন্ধে সবাইকে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
শিশুশ্রম বন্ধে সবাইকে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান ছবি: দেলোয়ার হোসেন বাদল

ঢাকা: দেশে বর্তমানে শিশু শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ৪৭ লাখ। একসময় শিশুশ্রমের যে করুণ অবস্থা ছিল, এখন তা অনেক কমেছে।

তবে এখনো যে সেক্টরগুলোতে শিশুশ্রম বিদ্যমান, সেগুলো সুনির্দিষ্ট করে যদি সুস্পষ্ট পদক্ষেপ নেওয়া যায়, তবে এটি বন্ধ করা সম্ভব। নয়তো আমাদের জন্য এটি অভিশাপ হিসেবেই থেকে যাবে বলে মন্তব্য বিশিষ্টজনদের।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) নসরুল হামিদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ কাউন্সিল ও লেবার রাইটস সাংবাদিক ফোরাম (আইটিইউসি) আয়োজিত শিশুশ্রম নিরসনে ট্রেড ইউনিয়ন ও গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন বক্তারা।

আইটিইউসি চেয়ারম্যান ও শ্রমিক নেতা আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি ওমর ফারুক।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন লেবার রাইটস সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আবদুল হান্নান, সংযুক্ত শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ বাদলসহ সংশ্লিষ্ট ছয়টি ফেডারেশনের প্রতিনিধিরা।

সভায় শিশুশ্রম নিয়ে বিএফইউজে সভাপতি ওমর ফারুক বলেন, ঢাকা শহরের যে এলাকায় আগে অনেক শিশু শ্রমিক কাজ করতো সেখানে এখন আগের চেয়ে অনেক কমেছে। তবে এখনো যেগুলো আছে, সেগুলো নিরসনে কি করা যায় তা সুস্পষ্ট করে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। আর সরকারকেও এ বিষয়ে এগিয়ে আসতে হবে, কেননা এখানে সরকারের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, আমরা পরিবহন খাতে কোনো শিশু শ্রমিক দেখতে চাইনা। কিন্তু বর্তমান সময়ে এসেও পরিবহন খাতে বহু শিশু শ্রমিক দেখা যায়। বিশেষ করে লেগুনাগুলোতে। পরিবহন খাতে শিশু শ্রম মুক্ত করতে হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও কাজ করতে হবে। কোনো পরিবহনে হেল্পার ও ড্রাইভার হিসেবে যেন কোনো শিশু না থাকে সে ব্যাপারে আমাদের পদক্ষেপ নিতে হবে। তারা যে টাকা পরিশ্রম করে উপার্জন করে, সেই পরিমাণ অর্থ তাদের দিয়ে শিক্ষাক্ষেত্রে পাঠাতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে আইটিইউসি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, কোনো শিশুর উদ্ভাবন চিন্তা কেমন আমরা বলতে পারি না। তাদের মেধা বিকাশে যদি আমরা সাহায্য করি তাহলেই দেশ এগিয়ে যাবে এবং শিশু শ্রম দূর হবে।

উল্লেখ্য, সরকারি হিসাব মতে দেশে মোট জনসংখ্যা ১৬ কোটি ১৩ লাখ। এদের মধ্যে ১৪ বছর পর্যন্ত শিশুর সংখ্যা পাঁচ কোটি ২৩ লাখ (বিবিএস ২০১৬-১৭)। ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি অর্জনে এবং দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিতে শিশুদের যোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তাই শিশুদের জন্য উপযুক্ত শিক্ষা, সুস্বাস্থ্য ও অনুকূল পরিবেশ তৈরিতে গুরুত্ব দেন সভায় অংশ নেওয়া বিশিষ্টজনেরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
এইচএমএস/কেএআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa