ঢাকা, রবিবার, ৯ মাঘ ১৪২৮, ২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

জাতীয়

দেশে প্রবাসীদের বিনিয়োগের আহ্বান ভূমিমন্ত্রীর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২২ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২১
দেশে প্রবাসীদের বিনিয়োগের আহ্বান ভূমিমন্ত্রীর ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

ঢাকা: বিদেশি বিনিয়োগকারী ও প্রবাসী বাংলাদেশি বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী।

তিনি বলেন, আইএমএফ-এর উপাত্ত অনুযায়ী করোনা মহামারিকালীন বিশ্বের শীর্ষ পাঁচটি সহনশীল অর্থনীতির দেশের মধ্যে বাংলাদেশ একটি।

রোববার (২৮ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আওতাভুক্ত বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) কর্তৃক ঢাকার একটি হোটেলে দুই দিনব্যাপী আয়োজিত বাংলাদেশ বিনিয়োগ শীর্ষ সম্মেলন ২০২১- এ অর্থনৈতিক অঞ্চল সম্পর্কিত সেশনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চ্যুয়ালি দেশে-বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে দুই দিনব্যাপী বিনিয়োগ সম্মেলন উদ্বোধন করেন।  

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেন, বিনিয়োগ ও উন্নয়নে ভূমি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমি মন্ত্রণালয় আন্তরিকতার সঙ্গে অর্পিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। ভূমিমন্ত্রী হিসেবে আমি আপনাদের আশ্বস্ত করছি। আমি আমার দায়িত্ব অত্যন্ত আন্তরিকতার সঙ্গে পালন করার চেষ্টা করছি।

তিনি বলেন, প্রত্যক্ষ বৈদেশিক বিনিয়োগ অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সরকার এ কারণে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের অনেক ভালো প্রণোদনা দিচ্ছে।

দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশ ও ভুটানের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি মিয়াং টেম্বন বলেন, বৈদেশিক বিনিয়োগে বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টার কারণে এ দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে। যা দারিদ্র্য বিমোচন ত্বরান্বিত করছে। সবুজ প্রবৃদ্ধির কথা মাথায় রেখে বাংলাদেশের যে অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে উঠেছে তা বিশ্বব্যাপী দূরদর্শী উদ্যোগ হিসেবে স্বীকৃত পাচ্ছে।

সম্মেলনে অনুষ্ঠেয় অনেকগুলো সেশনের মধ্যে অন্যতম ‘অর্থনৈতিক অঞ্চল’ সম্পর্কিত বিশেষ আলোচনা সেশন। সেশনটিতে বিনিয়োগের সুযোগ তুলে ধরার পাশাপাশি অর্থনৈতিক অঞ্চলে নীতি ও নিয়ন্ত্রক পরিবেশের ওপর একটি সার্বিক ধারণা দেওয়া হয়।  

সেশনটি সঞ্চালনা করেন ভারত-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (আইবিসিসিআই) সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ।

সেশনে কিনোট উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী সদস্য (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) মোহাম্মদ এরফান শরীফ।

প্রসঙ্গত, অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের প্রণোদনা হিসেবে ১০ বছরের কর অবকাশ ও লভ্যাংশ প্রত্যাবাসনের সুবিধা এবং ব্যবসা পরিচালনার জন্য ১২৫টি পরিসেবার ওয়ান স্টপ সার্ভিস (একই ছাদের নিচে সব সেবা) সেন্টারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সারা দেশে ১০০ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।

সেশনে প্যানেল আলোচক হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষের (বেপজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল আবুল কালাম মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান, জাইকা বাংলাদেশ অফিসের প্রধান প্রতিনিধি ইউহো হায়াকাওয়া, বাংলাদেশ প্রাইভেট ইকোনমিক জোন ইনভেস্টর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এএসএম মাইনুদ্দিন মোনেম এবং জাপানের সুমিটোমো করপোরেশন এশিয়া ও ওশেনিয়া অঞ্চলে বাংলাদেশ অফিসের মহাব্যবস্থাপক শিনিচি নাগাটা।

বাংলাদেশ সময়: ২১২২ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৮, ২০২১
জিসিজি/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa