ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

বঙ্গমাতার নামে হচ্ছে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৫, ২০২১
বঙ্গমাতার নামে হচ্ছে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়

সিলেট: সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করার নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চৌহাট্টাস্থ অস্থায়ী ক্যাম্পাসের হলরুমে তৃতীয় সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মোর্শেদ আহমেদ চৌধুরী।

এ সময় প্রতিষ্ঠানটির নাম পরিবর্তন করে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় নামে নামকরণের প্রস্তাব করেন ভিসি।

এ প্রস্তাবের সঙ্গে সভায় উপস্থিত সব সিন্ডিকেট সদস্য সম্মতি প্রকাশ করলে নতুন নামকরণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়।

এছাড়া সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের জন্য প্রস্তাবিত উন্নয়ন পরিকল্পনার বিষয়ে আলোচনা হয়। প্রস্তাবিত উন্নয়ন পরিকল্পনাটি সিন্ডিকেট সভায় প্রশংসিত হয়।

সিন্ডিকেট সভায় উপস্থিত ছিলেন- সংসদ সদস্য ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, সংসদ সদস্য গাজী মোহাম্মদ শাহনওয়াজ, জাতীয় অধ্যাপক ডা. শাহলা খাতুন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ডা. ছয়েফ উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার খলিলুর রহমান, আর টি এম ইন্টারন্যাশনালের প্রতিষ্ঠাতা ড. আহমদ আল-কবির, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. শাখাওয়াত হোসেনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব সিন্ডিকেট সদস্যরা।

দীর্ঘদিন ধরেই সিলেটবাসীর দাবি ছিল একটি পূর্ণাঙ্গ মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের।

এ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় ২০১৮ সালের ১ অক্টোবর অনুমোদন হয় সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় আইন। একই বছরের ২০ নভেম্বর উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন অধ্যাপক ডা. মোর্শেদ আহমেদ চৌধুরী।

তিনি দায়িত্ব গ্রহণ করার পর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি আন্তর্জাতিক মানের গবেষণাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী সাতটি মেডিক্যাল কলেজ, একটি ডেন্টাল কলেজ ও নয়টি নার্সিং কলেজকে অধিভুক্ত করে দুটি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের ভর্তি ও রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে একাডেমিক কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রার অংশ হিসেবে গত ২৪ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে এমবিবিএস কোর্সের প্রথম পেশাগত পরীক্ষা। এর আগে বিএসসি ইন নার্সিং ও পোস্ট বেসিক বিএসসি নার্সিং পরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন করে ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের লক্ষ্যে নগরীর উপকণ্ঠে দক্ষিণ সুরমায় ৮০ একর ভূমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্যে ডিপিপি ও মাস্টারপ্ল্যান তৈরিপূর্বক অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩২ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৫, ২০২১
এনইউ/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa