ঢাকা, শুক্রবার, ৬ কার্তিক ১৪২৮, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

অপহরণের দু’দিন পর টয়লেটের মেঝের নিচে মিলল শিশুর মরদেহ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২১
অপহরণের দু’দিন পর টয়লেটের মেঝের নিচে মিলল শিশুর মরদেহ

মাদারীপুর: মাদারীপুর জেলার শিবচর থেকে অপহরণের দু’দিন পর নির্মাণাধীন একটি টয়লেটের মেঝের নিচ থেকে কুতুবউদ্দিন নামে দুই বছরের একটি শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।  

এ ঘটনায় নিহত শিশুর চাচি নার্গিস আক্তার (৩৫) ও চাচাতো বোন হাফসাকে (১৪) আটক করেছে শিবচর থানা পুলিশ।

নিহত কুতুবউদ্দিন শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের বাংলাবাজার ঘাট সংলগ্ন বাগিয়া গ্রামের ইসমাইল বেপারীর ছেলে।

বৃহস্পতিবার দিনগত রাতে পাশের উপজেলা শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার নাওডোবা এলাকার একটি নির্মাণাধীন টয়লেটের নিচ থেকে মাটিচাপা দেওয়া ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এর আগে গত বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সকালে শিশুটি নিখোঁজ হয়।  

পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শিশুটির চাচি নার্গিস আক্তারের স্বামী আবুল হোসেন বেপারী গত কয়েক বছর আগে মারা গেছেন। নার্গিস তার এক ছেলে ও মেয়ে হাফসাকে নিয়ে বাবার বাড়ি জাজিরার নাওডোবা গ্রামে বসবাস করেন। গত কয়েকদিন আগে স্বামীর বাড়ির জায়গা-জমি ভাগ-বন্টন নিয়ে নার্গিসের সঙ্গে দেবর-ভাশুরদের মধ্যে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়। এদিকে গত বুধবার সকালে নার্গিসের মেয়ে হাফসা চাচাতো ভাই কুতুবউদ্দিনকে চকলেট কেনার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়।
এরপর থেকেই শিশুটিকে খুঁজে পাচ্ছিল না তার পরিবার। পরে ওই দিন বিকেলেই বাবা ইসমাইল বেপারী শিবচর থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেন। পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে শিবচর থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার বিকেলে নার্গিস আক্তার ও তার মেয়ে হাফসাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে নাওডোবা এলাকার একটি নির্মাণাধীন টয়লেটের মেঝের মাটির নিচ থেকে কুতুবউদ্দিনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত কুতুবউদ্দিনের চাচা মুছা বেপারী বলেন, আমার ভাই (আবুল হোসেন) মারা যাওয়ার পরে আমরা ভাইয়ের বউ, বাচ্চাদের খোঁজ খবর রাখি। টাকা পয়সাও দেই। কিন্তু জায়গা-জমি নিয়ে একটু দ্বন্দ্বের কারণে তারা আমার ভাতিজাকে খুন করেছে। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

শিবচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমির হোসেন সেরনিয়াবাত জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে সন্দেহভাজন হিসেবে শিশুটির চাচি ও চাচাতো বোনকে আটক করলে তারা হত্যার কথা স্বীকার করেন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২১
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa