ঢাকা, শুক্রবার, ২ আশ্বিন ১৪২৮, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮ সফর ১৪৪৩

জাতীয়

পতিতাপল্লীর শিশুদের জীবনধারা বদলাতে ‘স্কুল হোস্টেল’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৪৭ ঘণ্টা, জুলাই ২৮, ২০২১
পতিতাপল্লীর শিশুদের জীবনধারা বদলাতে ‘স্কুল হোস্টেল’ সংগৃহীত ছবি

ঢাকা: যৌনপল্লীতে জন্ম নেওয়া শিশুদের বংশপরম্পরায় পতিতাবৃত্তিকে পেশা হিসেবে নেওয়ার প্রবণতা রোধ এবং তাদের স্বাভাবিক জীবন ধারায় ফিরিয়ে আনার মানবিক উদ্যোগ নিয়ে পুরস্কৃত হয়েছে মাঠ প্রশাসনের পাঁচজন মেধাবী কর্মকর্তা। স্কুলের পাশে হোস্টেল নির্মাণসহ বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নিয়ে সাড়া ফেলেছেন তারা।

 

খুলনা জেলার সাবেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোহাম্মদ হেলাল হোসেনের (বর্তমানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের উপ-সচিব) নেতৃত্বে পতিতাপল্লীর শিশুদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার এই মানবিক উদ্যোগ নেওয়া হয়। উদ্যোগ নেন খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. ইউসুফ আলী, সাবেক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) জিয়াউর রহমান (বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক্সেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের ন্যাশনাল পোর্টাল ডোমেইন এক্সপার্ট কনসালটেন্ট), খুলনার দাকোপ উপজেলার সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আব্দুল ওয়াদুদ (বর্তমানে খুলনার ডমুরিয়ার ইউএনও), খুলনার দাকোপ উপজেলার বর্তমান ইউএনও মিন্টু বিশ্বাস এবং জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার শারমিন জাহান লুনা।  

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় জানায়, খুলনার দাকোপ উপজেলার বানীশান্তা পতিতাপল্লীর শিশুদের বংশপরম্পরায় পতিতাবৃত্তিকে পেশা হিসেবে নেওয়ার প্রবণতা রোধ এবং স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেন এসব কর্মকর্তারা।

উদ্যোগ বাস্তবায়নে প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাশে এসব শিশুদের জন্য আবসিক হোস্টেল নির্মাণ করা হয়।  

পতিতাপল্লীতে জন্ম নেওয়া শিশুদের সমাজের মূল ধারায় আনতে এ উদ্যোগের সঙ্গে স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে সম্পৃক্ত করা হয়। মা ও অভিভাবক সমাবেশের আয়োজন করে স্থানীয় প্রতিনিধি ও জনগণকে বিদ্যালয় পরিচালনার সঙ্গে সম্পৃক্ত করা হয়। এর ফলে সেসব জনগণের মনোভাব ও প্রথাগত দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে শুরু করেছেন।


এ উদ্যোগ সুবিধাবঞ্চিত এবং সংকটাপন্ন শিশুদের জীবনমানে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে সহায়ক হবে বলে মনে করে সরকার। এই উদ্যোগটিকে অন্যন্যসাধারণ উদ্যোগ হিসেবে বিবেচনা করে মোহাম্মদ হেলাল হোসেন ও তার দলকে জনপ্রশাসন পদক ২০২১ দেয় সরকার।

কৃতিত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) দলগতভাবে এসব কর্মকর্তাদের জনপ্রশাসন পদক দেওয়া হয়।  

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে পদক তুলে দেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। এ সময় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন শেখ হাসিনা।  

ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন প্রান্তে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব কে এম আলী আজমসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

বাংলাদেশ সময়: ০১৩৫ ঘণ্টা, জুলাই ২৮, ২০২১
এমইউএম/এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa