ঢাকা, শনিবার, ১০ আশ্বিন ১৪২৮, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬ সফর ১৪৪৩

জাতীয়

বাংলাবাজার ঘাটে নির্বিঘ্নে যাত্রীদের ফেরি পারাপার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৪ ঘণ্টা, জুলাই ২৩, ২০২১
বাংলাবাজার ঘাটে নির্বিঘ্নে যাত্রীদের ফেরি পারাপার

মাদারীপুর: বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে কঠোর লকডাউনের প্রথম দিনে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সারাদিনে যাত্রী পারাপারে তেমন কোন বাধা ছিল না। ঘাটে যাত্রীদের সংখ্যা কম হলেও নির্বিঘ্নেই যাত্রীরা ফেরিতে উঠতে পেরেছেন।


 
যাত্রীদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, ঈদের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার যারা ঢাকা যেতে পারেননি তাদের বেশিরভাগ যাত্রীই শুক্রবার সকাল থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে বাংলাবাজার ঘাটে আসেন। ঘাটে যাত্রী ভাড়া ২৫ টাকা দিয়ে সহজেই ফেরিতে উঠে যাচ্ছেন। তবে থ্রি হুইলার ছাড়া কোনো গণপরিবহন না চলার কারণে ঘাটে আসতে বিপাকে পড়তে হয়েছে তাদের।

সরেজমিনে শুক্রবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত শিবচরের বাংলাবাজার ঘাটে অবস্থান করে দেখা গেছে, সকালের দিকে বৃহস্পতিবার রাতে ঘাটে আটকে পড়া প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাসসহ অন্যান্য যানবাহন ফেরিতে পার করা হচ্ছে। একইভাবে শিমুলিয়া থেকে ছেড়ে আসা ফেরিতেও যাত্রীবাহী ছোট যানবাহন ছিল। দুপুরের দিকে পণ্যবাহী ট্রাক, অ্যাম্বুলেন্স, কাভার্ডভ্যান পার হতে দেখা গেছে। একইসঙ্গে সাধারণ যাত্রীরাও ফেরিতে পার হচ্ছেন। ঢাকা থেকে আসা যাত্রীরাও ছিলেন ফেরিতে।  

মো. হৃদয় নামে ঢাকাগামী এক যাত্রী বলেন, লকডাউন জেনেই বের হয়েছি। ভেবেছিলাম ফেরিতে পার হতে না পারলে বাড়িতেই ফিরে যেতে হবে। কিন্তু ঘাটে এসে দেখলাম অনেকেই পার হচ্ছে। ফেরিতে ওঠার আগেই ঘাট থেকে ২৫ টাকা দিয়ে টিকিট কাটতে হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ফেরিতে যাত্রীদের তেমন একটা ভিড় নেই। তবে যাত্রীদের পার হতে কোনো বাধার মুখে পরতে হয়নি।

ঢাকা থেকে বাড়িমুখী যাত্রী হনুফা বেগম বলেন, বাড়ি যাইতাছি। ঈদের আগে যাইতে পারি নাই। রাস্তায় বাস বন্ধ।  ঘাটে আসতে বার বার গাড়ি বদলাইতে হইছে। তবে ফেরিতে পার হইতে সমস্যা হয় নাই।

বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ঘাট সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল থেকে নৌরুটে ১৬টি ফেরি চলেছে। সকালের দিকে কিছু যানবাহনের চাপ ছিল। যা আগের রাতে ঘাটে আটকা ছিল। দুপুরের আগেই তা পার করা হয়েছে। তবে যাত্রীবাহী কোনো যানবাহন পার করা হয়নি। অ্যাম্বুলেন্স, কাভার্ডভ্যান, পণ্যবাহী ট্রাক আর জরুরি ভিত্তিতে ঘাটে আসা গাড়ি পার করা হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, নৌরুটে যাত্রীবাহী কোনো যানবাহন পার করা হচ্ছে না। সকালে গতরাতের কিছু যানবাহন পার করা হয়েছে। এছাড়া অ্যাম্বুলেন্সসহ কিছু জরুরি যানবাহন পার হচ্ছে। ঘাটে কোনো চাপ নেই।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৩ ঘণ্টা, জুলাই ২৩, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa