ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৮, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

হাটে স্বাস্থ্যবিধি না মানা দেখলেই অ্যাপে অভিযোগ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩২৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০২১
হাটে স্বাস্থ্যবিধি না মানা দেখলেই অ্যাপে অভিযোগ কথা বলছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম। ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: কোরবানির পশুর হাটগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়টি দেখা না গেলেই ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) অ্যাপ ‘সবার ঢাকা’-তে অভিযোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।

অভিযোগ দায়ের করা হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

রোববার (১৮ জুলাই) রাজধানীর ভাটারার সাইদনগর হাট পরিদর্শনে যান ডিএনসিসি মেয়র। হাট এলাকা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, কোনো হাটে যদি স্বাস্থ্যবিধি না মানতে দেখেন তাহলে ‘সবার ঢাকা’ অ্যাপে অভিযোগ দায়ের করুন। প্রতিটি হাটে পাঁচ জন করে কাউন্সিলর দায়িত্বে আছেন, তাদেরকে বলুন। তাদের বিরুদ্ধেও কোনো অভিযোগ থাকলে অ্যাপে জানান। অভিযোগ দায়েরের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নয়টি হাটের জন্য ডিএনসিসির তিনটি ভ্রাম্যমাণ আদালত রয়েছেন। ম্যাজিস্ট্রেটদের আমি বলেছি যে, কোনো হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানা না হলে সেটি যেন দ্রুত বন্ধ করে দেওয়া হয়। হাসিল ঘর বন্ধ করে দিলেই হবে। এবার আমরা স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে খুব কঠোর।

হাটে আসা বিক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা থাকছে জানিয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, এবারই প্রথম আমরা নয়টি হাটে এন্টিজেন পরীক্ষার মাধ্যমে দ্রুত করোনা টেস্টের ব্যবস্থা রেখেছি। ব্র্যাক এটা করছে। অনেকেই ঢাকার বাইরে বিভিন্ন সীমান্তবর্তী জেলা থেকে আসছেন। এমন কারও মধ্যে যদি করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়, সর্বোচ্চ আধা ঘণ্টার মধ্যে তাকে হাট থেকে সরিয়ে ফেলা হবে। এছাড়াও প্রতিটি হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য শক্তি ফাউন্ডেশন এবং ইজারাদারদের পক্ষ থেকে ২শ জন করে স্বেচ্ছাসেবক সদস্য থাকছেন। ‘মাস্ক আমার সুরক্ষা সবার’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে সবাইকে মাস্ক পরতে সচেতন করা হচ্ছে। ইয়ুথ বাংলাসহ আরও কিছু সংস্থা আমাদের সাহায্য করছে।

হাটে এসে মূল হাটের মধ্যে প্রবেশ না করে বাইরে থেকেও পশু কেনার সুযোগ রাখা হয়েছে বলে জানান ডিএনসিসি মেয়র।  

আতিকুল ইসলাম বলেন, অনেকেই বলছেন যে, তারা হাটে আসতে চান কিন্তু মূল হাটে প্রবেশ করতে চান না। তাদের জন্য হাটের বাইরে আলাদা তাবু করেছি। সেখানে বসে পশুর ছবি দেখে পশু কিনতে পারবেন। হাটের ভেতরে যেতে হবে না। এই হাটে প্রথম এটা করা হয়েছে। অন্য হাটেও করা হবে। এছাড়া অনলাইনেও পশু কিনতে পারবেন।

আসন্ন ঈদুল আজহায় সবাইকে নির্ধারিত স্থানে পশু কোরবানি করারও আহ্বান জানান আতিকুল।  

তিনি বলেন, ২৭০টি স্থান (৫৪টি ওয়ার্ডের প্রতিটিতে ৫টি করে) নির্ধারণ করা দেওয়া হয়েছে। আমরা আহ্বান জানাবো সবাই যেন সেখানে পশু কোরবানি করেন। আর কোরবানির পশু কিনতে এসে কেউ যেন কোরবানি হয়ে না যাই। তাই সবাই সব সময় মাস্ক পরবো, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করবো। শুধু শুধু হাটেও আসার দরকার নেই, বিশেষ করে শিশু ও বয়স্কদের।

মেয়রের পরিদর্শনকালে সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী সেলিম রেজাসহ বিভিন্ন বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং ভাটারা ও এর আশেপাশের এলাকার কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৫ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০২১
এসএইচএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa