ঢাকা, সোমবার, ৯ কার্তিক ১৪২৮, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

দাদির মামলায় মা জেলে, মুক্তির দাবিতে দুই শিশু সন্তানের আকুতি 

শফিকুল ইসলাম খোকন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৫৫ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০২১
দাদির মামলায় মা জেলে, মুক্তির দাবিতে দুই শিশু সন্তানের আকুতি 

বরগুনা: পারিবারিক কলহের জের ধরে শাশুড়ির দায়ের করা মামলায় পুত্রবধূ জেল হাজতে। এদিকে দাদির করা মামলায় আটক মায়ের মুক্তির জন্য অসহায় দূই শিশু ব্যানার ছাপিয়ে রাস্তায় অবস্থান করছে।

 

মা জেল হাজতে বাবার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা। দাদি বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে শিশু আলিফ (১১) এবং আড়াই বছরের গালিফকে। প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে শনিবার দিনভর শহরের টাউনহল এলাকার অগ্নিঝরা একাত্তরের পাদদেশে অসহায় দুই শিশু অবস্থান নেয়। বিকেলের দিকে তারা অবস্থান নেয় বরগুনার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে।

সন্ধ্যা পর্যন্ত অসহায় দুই শিশুর দায়িত্ব কেউ না নেওয়ায়, সন্ধ্যার দিকে তাদের নিজের বাড়িতে আশ্রয় দেন বরগুনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হাফিজ।  

এ বিষয়ে সোহেল হাফিজ জানান, শিশু আলিফের সঙ্গে কথা বলে তিনি জেনেছেন, বাবার চাকরির সুবাদে তারা গাজিপুরে বসবাস করে আসছিল। সে সেখানকার একটি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের শিক্ষার্থী সে। সম্প্রতি আলিফ ইংল্যান্ডের একটি স্কুলে লেখাপড়ার সুযোগ পেয়েছে, তার ভিসাও প্রস্তুত। করোনার কারণে তার ইংল্যান্ড যেতে দেরি হচ্ছিল। অথচ এমন একটি সময়ে কারাগারে রয়েছেন তাদের মা আনিতা জামান। শিশু আলিফ আরও জানায়, তার বয়স এখন ১১ বছর। অথচ মিথ্যে তথ্য দিয়ে মামলায় তার বয়স ১৮ বছর দেখিয়ে তাকেও আসামি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে উভয় পক্ষের আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত দুই তিনমাস ধরে শিশু আালিফ ও গালিফকে নিয়ে তাদের মা আনিতা জামান বরগুনায় তাদের গ্রামের বাড়ি আয়লা-পাতাকাটা ইউনিয়নের খেজুরতলা গ্রামে থাকছেন। জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে পারিবারিকভাবে আলিফ ও গালিফের বাবা মনিরুজ্জামান জুয়েল ও তার মা-বোনদের মাঝে কলহ চলছে। এসব কলহের জের ধরে আলিফের দাদি আলেয়া বেগম তার ছেলে মো. মনিরুজ্জামান ও পুত্রবধু আনিতা জামানের বিরুদ্ধ বরগুনা থানায় মারধরের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন। সে মামলায় গত বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) আলিফ ও গালিফের মা আনিতা জামানকে জেল হাজতে পাঠায় আদালত। মামলা থেকে মায়ের মুক্তির দাবি জানিয়েছে অসহায় দুই শিশু আলিফ ও গালিফ।

আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাড. নজরুল ইসলাম সিকদার জানান, আদালতে জামিনের আবেদন করেছিলাম। আদালত জামিন নামঞ্জুর করেছেন। রোববার আবারও আসামির জামিন আবেদন করা হবে।  

বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান জানান, সন্ধ্যার দিকে অসহায় শিশুদের কথা ভেবে মানবিক কারণে বরগুনা প্রেসক্লাবের সেক্রেটারি সোহেল হাফিজ ও তার স্ত্রী জাফরিন নিতু আপাতত তাদের দায়িত্ব নিয়েছেন। আলিফ ও গালিফের জন্যে বরগুনা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সম্ভব সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।    

বাংলাদেশ সময়: ০১৫৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০২১
এসআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa