ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

পুরনো রূপে ফিরলো সিলেট

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭২২ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২১
পুরনো রূপে ফিরলো সিলেট

সিলেট: ‘কঠোর লকডাউনে’ নিয়ন্ত্রিত ছিল মানুষের চলাচল। সড়কে ছিল না যানবাহন।

হালকা যানের দেখা মিললেও তা ছিল জরুরি পরিবহনে। আর হালকা যান চললেও প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে চলেছে অলিগলি দিয়ে। কিন্তু ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ‘কঠোর লকডাউন’ শিথিল করায় ব্যস্ত নগরী হয়ে উঠেছে সিলেট।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) সকাল থেকে সড়কে যানজট আর জনস্রোত ছিল সবখানে। আক্ষরিক অর্থে সেই পুরনো রূপে ফিরেছে সিলেট। অথচ করোনা আক্রান্তের দিক থেকে যখন সিলেটে একের পর রেকর্ড গড়ছে তখন ঈদকে সামনে রেখে হাট-বাজার, মার্কেটসহ সবকিছু খুলে দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে আকাশপথ, রেলপথ ও সড়ক পথ খুলে দেওয়াতে করোনা মহামারি ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে মনে করছেন চিকিৎসকরা।

অথচ একদিন আগেও মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে দেশজুড়ে ছিল দুই সপ্তাহের ‘কঠোর লকডাউন’। কিন্তু সবকিছু যেন অন্তসার হয়েছে ‘লকডাউন’ শিথিল করায়। তবে সরকারের পক্ষ থেকে লোকজনকে সচেতন হয়ে চলাফেরার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। আবার সপ্তাহের জন্য শিথিল করা ‘লকডাউনে’ পশুর হাটও চালু থাকছে।

আগামী ২৩ জুলাই থেকে ফের ‘কঠোর লকডাউনে’ যাবে সিলেটসহ সারাদেশ। তার আগে এ সপ্তাহে সিলেটে করোনা পরিস্থিতি কী হতে পারে তা নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছেন চিকিৎসকরা।  

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে নতুন করে আরও ৫৩৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন আরও তিনজন। ১০০ শয্যার করোনার বিশেষায়িত শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে ঠাঁই নেই। বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১০১ জন করোনা রোগী। এরমধ্যে ৭৯ করোনা পজিটিভ, উপসর্গ নিয়ে ২২ জন ও আইসিইউতে ১৬ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. মিজানুর রহমান।  

সংশ্লিষ্টরা জানান, এ অবস্থায় ‘লকডাউন’ শিথিল করার কারণে কোথাও স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। বাস, ট্রেন, সিএনজিচালিত অটোরিকশাসহ হালকা যানে স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলাচল করছে মানুষ। এছাড়া মার্কেট, বিপণিবিতান ও হাট-বাজারে প্রথম দিনেই মানুষের জটলা দেখা গেছে।  

নগর ঘুরে দেখা গেছে, ‘লকডাউন’ না থাকায় জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হয়ে উঠেছে। রাস্তাঘাট, পাড়া-মহল্লা, দোকানে-মার্কেটে সর্বত্র মানুষের স্রোত। সড়কে চলছে সবধরনের পরিবহন। সিলেট থেকে চলছে দূরপাল্লার বাস। নগরের সব দোকানপাট খোলা হয়েছে। বিপণিবিতানগুলোতেও মানুষের ভিড় বাড়ছে। মানুষের চলাচল বাড়ায় নগরের বিভিন্ন স্থানে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আর করোনার সংক্রমণ নিয়ে মানুষের মধ্যে উদাসীন কাজ করছে। ফলে মাস্ক ছাড়াই অনেককে চলাচল করতে দেখা গেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১২ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২১
এনইউ/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa