ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৮, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

সাভারে ১৩, ধামরাইয়ে ৭ হাটে চলবে পশু বেচা-কেনা

সাভার করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৩ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২১
সাভারে ১৩, ধামরাইয়ে ৭ হাটে চলবে পশু বেচা-কেনা

সাভার (ঢাকা): আসছে পবিত্র ঈদুল আজহা অর্থাৎ কোরবানি ঈদ। এই ঈদে নিজের সামর্থ ও পছন্দমতো কোরবানির পশু কিনতে হাটে যাবেন মুসল্লিরা।

সেই লক্ষ্যে শিল্পাঞ্চল সাভারে ১৩টি ও ধামরাইয়ে সাতটি অস্থায়ী পশু হাটের অনুমোদন দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন ও পৌরসভা।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) দুপুরে হাট অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সাভার ও ধামরাই উপজেলার দুই নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাজহারুল ইসলাম ও হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী।

এরআগে, বুধবার (১৪ জুলাই) দুপুরে এই দুই উপজেলা থেকে ২০টি পশুর হাটের কাঙ্ক্ষিত ইজারাদারদের কাছে অনুমোদন দেওয়া হয়।

এবার সাভারের ছয় ইউনিয়নে মোট ১২টি পশুর হাট বসবে। এরমধ্যে তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নে ঋষিপাড়া এলাকায় একটি, ইয়ারপুর ইউনিয়নের নরশিংহপুর বটতলা গবাদিপশুর হাটে একটি, পাথালিয়া ইউনিয়নের কুরগাও বটতলা মাঠে একটি, আশুলিয়া ইউনিয়ন দুইটি কুটুরিয়া আদর্শ সংঘ এলাকায় একটি ও সোনার বাংলা ফ্যক্টরি সংলগ্ন মাঠে একটি। শিমুলিয়া ইউনিয়নে তিনটি গোহাইলবাড়ী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ মাঠে একটি, পারাগ্রাম জামে মসজিদ মাঠে একটি, বিকেএসপির প্রাচীরের কাছে একটি করে মোট তিনটি।  

এদিকে ধামসোনা ইউনিয়নের মোট চারটি গরুর হাট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সেগুলো হলো-ডেন্ডাবর আকবর হাজির টেকের মাঠ, ফারুকনগর ইসমাইল বেপারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ, ঘোরাপীর মাজার মাঠ ও বাঘবাড়ি বাজারের পাশে বসুন্ধরা মাঠ। এদিকে সাভার পৌরসভা এলাকায় একটি হাটের অনুমোদন দিয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষ।

অপরদিকে, ধামরাইয়ের কালামপুর, বাথুলি, বারবাড়িয়া, শরিফবাগ, কুল্লা ইউনিয়ন ও পৌরসভার ঢুলিভিটা এলাকায় মোট সাতটি গরুর হাট বসানো হয়েছে।

হাট ইজারাদাররা বলছেন, স্বাস্থ্য সুরক্ষারসহ নানা সুবিধা হাতে নিয়ে তারা এবারের হাট পরিচালনা করবেন।  

আশুলিয়ার নরসিংহপুর বটতলা এলাকার পশুর হাটের ইজারাদার মো. নূরুল আমিন সরকার বলেন, এই হাটে ক্রেতা সাধারণ যাতে করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পশু বেচাকেনা করে এজন্য আমরা হাট কর্তৃপক্ষ নিয়েছি নানা পদক্ষেপ। যেমন, থার্মোস্ক্যানার মেশিনের মাধ্যমে শরীরের তাপমাত্রা নির্ণয় ও মাস্ক ছাড়া যেন কেউ গরুর হাটে প্রবেশ না করতে পারে এজন্য থাকবে বিশেষ নজরদারি। বিদ্যুৎ চালিত অটোমেটিক স্প্রে, সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়ার সুব্যবস্থা ও হাটজুড়ে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। এছাড়া মাইকিংয়ের মাধ্যমে স্বাস্থ্যবিধি মানতে বারবার মনে করিয়ে দেওয়া হবে। দূর-দূরান্ত থেকে আগত বেপারী ভাইদের জন্য থাকা, খাওয়ার সুব্যবস্থা করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতে এই অস্থায়ী পশুর হাটগুলোর জন্য নানা নিয়ম বেধে দেওয়া হয়েছে। সে নিয়ম অমান্য করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন।

ধামরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকী বাংলানিউজকে বলেন, এবারে ধামরাইয়ে সাতটি পশুর হাটের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। হাটগুলো বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা বজায় রেখে চলে পারে এমন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া হাটের সকল ইজাদারদের সঙ্গে মিটিং করে কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মাজহারুল ইসলাম জানান, ১২টি পশুর হাট অনুমোদন পেয়েছে। সরকারের সকল নির্দেশনাগুলো যারা হাট অনুমোদন পেয়েছে তাদের লিখিতভাবে দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩০ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa