ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

৬ মাসেও নির্মাণ হয়নি ভেঙে পড়া কালভার্ট, দুর্ভোগে ৫ গ্রামবাসী

এ কে এস রোকন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৪৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৩, ২০২১
৬ মাসেও নির্মাণ হয়নি ভেঙে পড়া কালভার্ট, দুর্ভোগে ৫ গ্রামবাসী

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: আনারপুর-মেহেরপুর পাশাপাশি দুটি গ্রাম। গ্রামের ভেতর দিয়ে চলাচলের রাস্তায় রয়েছে একটি কালভার্ট।

ছয় মাস আগে কালভাটর্টি ভেঙে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে রয়েছে ওই এলাকার জনসাধারণ।  

এতে করে আনারপুর-মেহেরপুরসহ পার্শ্ববর্তী পাঁচ গ্রামবাসীকে দীর্ঘ নয় কিলোমিটার পথ ঘুরে যাতায়াত করতে হচ্ছে। নারী, শিশু ও বয়স্কদের চলাফেরায় কষ্টের শেষ নেই। বিশেষ করে কৃষকরা তাদের কৃষিপণ্য নিয়ে খুব বেকায়দায় রয়েছে।  

এদিকে গোমস্তাপুর উপজেলা এলজিইডি কার্যালয়ের পক্ষ থেকে তিন/চার দিন আগে সংযোগ সড়কটি নির্মাণের জন্য ওই এলাকা পরিদর্শন করেছে এবং দ্রুত নির্মাণকাজ শুরু হবে বলে গ্রামবাসীকে আশ্বস্ত করেছে। স্থানীয়রা আশায় বুক বাঁধছেন সড়কটি নির্মাণ হলে কালভার্টটিও নির্মাণ হবে।

এলাকার কৃষক আব্দুল জব্বার বলেন, কালভার্ট ভেঙে গেছে ছয় মাস পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। সম্প্রতি বোরো ধান ওঠানোর সময় কৃষকদের চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। ঘুরে যাওয়ার কারণে গুনতে হয়েছে অতিরিক্ত গাড়ি ভাড়া। বর্তমানে ভারী যানবাহন নিয়ে ওই রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করা যাচ্ছে না।
আনারপুর গ্রামের কভিদ আলী বলেন, কালভার্টটি ভেঙে যাওয়ায় কমপক্ষে চার থেকে পাঁচটি ওয়ার্ডের প্রায় পাঁচ হাজার লোকের চলাফেরায় সমস্যা হচ্ছে। কৃষকদের চাষাবাদ ও কৃষি উপকরণ নিয়ে যেতে খুব সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। দ্রুত কালভার্ট মেরামত করার দাবি জানান তিনি।

ইউপি সদস্য মোকসেদুল ইসলাম বলেন, কালভার্ট ভেঙে যাওয়ার বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন করা হয়েছে।  

তিনি আরও বলেন, ভাঙা কালভার্টের উপর একটি বাঁশের পাটাতন তৈরি করে দেওয়ায় শুধুমাত্র হেঁটে ও হালকা যান চলাচল করতে পারছে। কিন্তু তাতে পুরো সমস্যা মিটছে না।

এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান বলেন, কালভার্টটি নির্মাণের জন্যে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। আমরা আশা করছি দ্রুত তা বাস্তবায়ন হবে।

উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) সুলতানুল ইমাম বলেন, আমাদের টিম ওই এলাকা পরিদর্শন করে প্রকল্প প্রস্তুত করেছে। বরাদ্দ পেলেই রাস্তা ও কালভার্ট নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ০৮৪৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৩, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa