ঢাকা, সোমবার, ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে মিথ্যা অপহরণ মামলা, ১৩ মাস পর ভিকটিম উদ্ধার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫২১ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০২১
প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে মিথ্যা অপহরণ মামলা, ১৩ মাস পর ভিকটিম উদ্ধার উদ্ধার শাহীন আলম

সিরাজগঞ্জ: প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজের ছেলেকে লুকিয়ে রেখে মিথ্যা অপহরণ মামলা দায়েরের ১৩ মাস পর ভিকটিম মো. শাহীন আলমকে (২২) সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করেছে সিরাজগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।  

শনিবার (১০ জুলাই) রাতে সিরাজগঞ্জ সদর থানার কড্ডার মোড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে উদ্ধার করা হয়।

শাহীন আলম শাহজাদপুর উপজেলার কৈজুরী গ্রামের মো. হাসান আলীর ছেলে।  

রোববার (১১ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে নিজ কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মানিকুল ইসলাম বলেন, শাহীন আলম অপহরণ হয়েছে দাবি করে ২০২০ সালের ৪ জুলাই তার মা মাজেদা বেগম বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ হোসেন আলী গংয়ের সাতজনকে আসামি করে উল্লাপাড়া থানায় মামলা দায়ের করেন।  

মামলার বিবরণে তিনি উল্লেখ করেন, ১৪ জুন রাতে উল্লাপাড়া উপজেলার বড় লক্ষ্মীপুর গ্রামের মিন্টু নামে এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে তার ছেলেকে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি করেছে। মুক্তিপণ না দিলে ছেলেকে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকিও আসামিরা দিয়েছে বলে মামলায় তিনি উল্লেখ করেন।  

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পারে ভিকটিমকে লুকিয়ে রেখে বাদীনী মিথ্যা মামলা দিয়ে আপস শর্তে আসামিদের কাছে টাকা দাবি করছেন। এ অবস্থায় চলতি বছরের ১৭ জুলাই মামলাটির তদন্তভার গোয়েন্দা পুলিশে দিলে এসআই খোকন চন্দ্র সরকার আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তির সাহায্যে সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে কড্ডার মোড় এলাকা থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করেন।  

সংবাদ সম্মেলনে ডিবির ওসি আরও বলেন, ভিকটিম শাহীন আলম ও সাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদ ও অন্যান্য তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণে জানা যায়, শাহীন আলম তার দুই বন্ধু জহুরুল ও মিন্টুর সঙ্গে গাজীপুরে থাকতেন। ২০২০ সালের ১৪ জুন গাজীপুর থেকে তিন বন্ধুই নিজ বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন। আসতে দেরি হওয়ায় তারা তিনজনই উল্লাপাড়া উপজেলার বড় লক্ষ্মীপুর গ্রামের জহুরুলের বাড়িতে অবস্থান করেন। এ সময় এলাকাবাসী তিনজনকে ইয়াবা ব্যবসায়ী সন্দেহ করে আটক করে তাদের চর-থাপ্পর দেওয়ার পর জহুরুলের বাবা-মার জিম্মায় দেয়।  

দুদিন পর শাহীন আলম তিন বন্ধুসহ নিজ বাড়ি কৈজুরীতে গিয়ে বাবা-মাকে এসব কথা বলে। এ অবস্থায় তার মা মাজেদা বেগম উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ছেলে শাহীন আলমকে লুকিয়ে রেখে উল্লাপাড়ার বড় লক্ষ্মীপুর গ্রামের হোসেন আলীসহ সাতজনকে আসামি করে থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন।  

এ ঘটনায় বাদীনির বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়েরের অভিযোগে মামলা হবে বলে জানান গোয়েন্দা পুলিশের ওসি।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫২০ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa