ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

ডোমারের হাট কাঁপাবে ‘হিটলার’

মো. আমিরুজ্জামান, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮০০ ঘণ্টা, জুলাই ১০, ২০২১
ডোমারের হাট কাঁপাবে ‘হিটলার’ ২৮ মণের হিটলার

নীলফামারী: নাদুস-নুদুস ষাঁড়টির নাম রাখা হয়েছে হিটলার। নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার সবচেয়ে বড় গরু এটি।

সাড়ে পাঁচ ফুট উচ্চতা আর নয় ফুট লম্বা এ গরুটির ওজন ২৮ মণ। হিটলারের দাম হাঁকা হচ্ছে ১২ লাখ টাকা। বলা হচ্ছে এবারের কোরবানিতে হাঁট কাঁপাবে এই হিটলার।

উপজেলার পাঙ্গামটকপুর ইউনিয়নের বেকনুর রহমান (৪৮) এটি লালন-পালন করছেন।  

তিনি বলেন, এবার কোরবানির হাটে তুলব বলে ছয় মাস ধরে হিটলারের বাড়তি যত্ন নিচ্ছি। আমার হিটলারের ওজন ২৮ মণের কিছুটা বেশি হবে। ১২ লাখ টাকা হলে তাকে বিক্রি করব।
 
হিটলারের লালন-পালন প্রসঙ্গে বেকনুর বলেন, আমি পেশায় গরু ব্যবসায়ী। তিন বছর আগে দিনাজপুর জেলার কাহারোল থেকে ৫৩ হাজার টাকায় এই গরুটি কিনি। বাড়িতে আনার পর সবাই গরুটি খুব পছন্দ করে আর বিক্রি করতে নিষেধ করে। আমারও পছন্দ হওয়ায় আর বিক্রি করিনি। অল্প দিনের মধ্যেই গরুটি আমাদের বাড়ির সবাইকে চিনে ফেলে। আমি বাড়িতে না থাকলে বাকিরা গরুটির দেখাশোনা করে, খেতে দেয়। আর আমার ছেলে শামিম তো সারাদিন গরুটি নিয়ে ব্যস্ত থাকে। হিটলার নামটা সেই দিয়েছে।  

গরুটির খাবার হিসেবে দেওয়া হচ্ছে ভুষি, ঘাস, ভুট্টার গুঁড়া ও খৈল। বুড়িতিস্তা নদীর পাড় থেকে আমি প্রতিদিন ঘাস কেটে আনি। হিটলার ঘাস খেতে খুব পছন্দ করে। প্রতিদিন হিটলারের খাবার বাবদ প্রায় পাঁচশ টাকা খরচ হয়। নিজেরা ভালো খেতে না পারলেও হিটলারকে ভালো খাবার দেওয়ার চেষ্টার করা হয়।
 
এলাকার লোকজন জানান, এর আগে এত বড় গরু আমাদের এলাকায় দেখিনি। প্রতিদিন এই গরুটি দেখতে আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন আসে। এতে খুশি হলেও লকডাউনের কারণে ঢাকা থেকে লোক আসতে না পারলে এত বড় গরুর ক্রেতা না পাওয়ার শঙ্কাও আছে বেকনুরের।  

এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক বলেন, লকডাউনের কারণে অনলাইনে গরু বিক্রি হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ডোমার উপজেলায় কয়েকটি হাট চলবে। খামারিদের গরু বিক্রি করতে আমরা সহযোগিতা করব। এজন্য প্রস্ততি নেওয়া হচ্ছে।


বাংলাদেশ সময়: ০৭৫৫ ঘণ্টা, জুলাই ১০, ২০২১
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa