ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

লকডাউনের ষষ্ঠ দিনে সড়কে বেড়েছে লোকসমাগম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩১ ঘণ্টা, জুলাই ৬, ২০২১
লকডাউনের ষষ্ঠ দিনে সড়কে বেড়েছে লোকসমাগম ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: দেশব্যাপী চলমান কঠোর লকডাউনের ষষ্ঠ দিনে জন ও যান চলাচল বেড়েছে৷ রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক ঘুরে দেখা গেছে, গত পাঁচদিনের তুলনায় মঙ্গলবার সড়কে অপ্রয়োজনে অনেকেই ঘর থেকে বেরিয়েছেন৷

মঙ্গলবার (০৬ জুলাই) পাড়া-মহল্লা, বাজার ও প্রধান সড়কে মানুষের চলাচলের সঙ্গে যানবাহনের সখ্যা বেশি দেখা গেছে।

সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত রাজধানীর টিকাটুলী, মালিবাগ, মগবাজার, পল্টন, মোহাম্মদপুর, ফার্মগেট, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেছে, সরকারের বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করছে পুলিশ।

বিভিন্ন জায়গায় বসেছিলো ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত কয়েকদিনের তুলনায় এদিন রাজধানীতে ব্যক্তিগত গাড়ির পাশাপাশি রিকশায় মানুষের বাড়তি যাতায়াত দেখা গেছে। বিভিন্ন সিগনালে বাড়তি যানবাহনের চাপে জটলাও দেখা গেছে।

এদিনও সড়কে সড়কে জনসাধারণের বাইরে বের হওয়া নিয়ন্ত্রণে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করেন সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির সদস্যরা।

করোনার সংক্রমণ রোধে সরকার নির্ধারিত কঠোর লকডাউনের ষষ্ঠ দিনে অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে গিয়ে রাজধানীজুড়ে গ্রেফতার হয়েছেন ৪৬৭ জন।

একইসঙ্গে এদিন ৩০৫ জনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অর্থদণ্ড দেওয়া হয়। তাদের সর্বমোট জরিমানার পরিমাণ ২ লাখ ২৭ হাজার ৪৮০ টাকা।

মঙ্গলবার দিনভর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার ও জরিমানা করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

সবশেষ তথ্য অনুযায়ী ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগ সড়ক পরিবহন আইন অনুযায়ী বিভিন্ন যানবাহনকে করা জরিমানার পরিমাণ ২৫ লাখ ২৯ হাজার ২৫ টাকা। সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করায় সর্বমোট ১ হাজার ৮৭টি গাড়িকে এ জরিমানা করা হয়।

করোনা সংক্রমণের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকার কর্তৃক জারিকৃত বিধি-নিষেধের ৬ষ্ঠ দিনে বিধি-নিষেধ কার্যকর ও জনসচেতনতা বৃদ্ধি করতে সারাদেশব্যাপী মাঠে ছিল র‌্যাব।

দেশব্যাপী র‌্যাবের ১৯১টি টহল ও ২০৭টি চেকপোস্ট পরিচালনা করা হয়। বিনা প্রয়োজনে মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে র‌্যাবের জনসচেতনামূলক মাইকিং, লিফলেট বিতরণ ও বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ কর্মসূচি চলমান ছিল।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা সরকার কর্তৃক ঘোষিত বিধি-নিষেধ বাস্তবায়নে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছেন। এছাড়াও র‌্যাব জেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে সারাদেশব্যাপী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে।

বিনা প্রয়োজনে গাড়ি নিয়ে বের হওয়া, জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত রাস্তায় অনর্থক ঘোরাফেরা করা, মাস্ক পরিধান না করা, মোটরসাইকেলে দুইজন আরোহন করাসহ অন্যান্য বিধি-নিষেধ অমান্য করায় সারাদেশব্যাপী পরিচালিত ৫০টি ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৪১৫ জনকে ২ লাখ ৩৭ হাজার ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ২০১১ ঘণ্টা, জুলাই ০৬, ২০২১
ডিএন/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa