ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৮, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

স্ত্রীর গায়ে আগুন দিয়ে পালালেন স্বামী, আটক ৪

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৭ ঘণ্টা, জুলাই ৪, ২০২১
স্ত্রীর গায়ে আগুন দিয়ে পালালেন স্বামী, আটক ৪

সিলেট: পারিবারিক বিরোধের জেরে মৌলভীবাজারের বড়লেখায় স্ত্রীর গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন দিয়েছে এক বখাটে স্বামী।  

অগ্নিদগ্ধ রহিমা বেগম (২২) এখন সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন।



রোববার (৪ জুন) সকাল ৬টার দিকে মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার রতুলী গাংকুল গ্রামে রহিমার বাবার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

রহিমা বেগম গাংকুল গ্রামের রফিক মিয়ার মেয়ে। তার স্বামী শিপন আহমদ উপজেলার রতুলী আরেঙ্গাবাদ গ্রামের মুকুল মিয়ার ছেলে।  

আহত রহিমার ভাই রাজু আহমদ বলেন, প্রায় ৩ বছর আগে শিপনের সঙ্গে তার বোনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাকে নির্যাতন করতো। তাদের ২ বছরের একটি ছেলে সন্তানও রয়েছে। সম্প্রতি তার বোনকে প্রতিনিয়ত মারধর করতো স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এ কারণে মাসখানেক আগে তার বোনকে বেড়াতে আনেন। কিন্তু নির্যাতনের বর্ণনা দিয়ে তিনি শ্বশুরবাড়ি যেতে অনীহা প্রকাশ করেন। এ ঘটনাটি গ্রামের লোকজন মীমাংসা করে দেয়। এরপর থেকে তিনি আমাদের বাড়িতে আসতে থাকেন।
তিনি বলেন, তার ভগ্নিপতি পেশায় মোটরসাইকেল মেকানিক। শনিবার রাতে কাজ শেষে আমাদের বাড়িতে এসে থাকে। ভোরবেলা তার বোনের শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যায়। তার চিৎকারে ঘরের লোকজন ওঠে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করে আগুন নেভানোর। কিন্তু ততক্ষণে তার বোনের চরম ক্ষতি হয়ে যায়। তাকে উদ্ধার করে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে সেখান থেকে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তার দেহের অধিকাংশ অংশ পুড়ে গেছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। চিকিৎসক তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউতে) রাখার কথা বললেও আইসিইউ সংকট রয়েছে বলে জানানো হয়। এখন তাকে বাঁচানোর কোনো উপায় দেখছি না।

স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, শনিবার ভোরে রহিমা বেগমের চিৎকারে এলাকার লোকজন বাড়িতে দৌড়ে যান। ততক্ষণে রহিমার দেহ ঝলসে গেছে। তাকে বাঁচানোর প্রাণান্তর চেষ্টায় পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালে নিয়ে গেছেন।  

স্থানীয়দের অভিযোগ, শিপন আহমদ বখাটে হিসেবে এলাকায় পরিচিত। তার চলাফেরাও খারাপ লোকদের সঙ্গে। আর স্ত্রীকে নির্যাতনের বিষয়টি অনেক পুরোনো ঘটনা এ নিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠক হলেও তিনি না সুধরানোয় স্ত্রী বাপের বাড়ি চলে যায়। সেখানে তাকে হত্যা উদ্দেশ্যে পেট্রোল দিয়ে গায়ে আগুন লাগিয়ে পালিয়ে যায় শিপন।  

মৌলভীবাজারের বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, পরিবারিক কলহের জেরে শিপন পেট্রোল ঢেলে স্ত্রীর গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ঘটনায় শিপনের মা, দু্ই ভাই, চাচাতো ভাইকে আটক করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৪ ঘণ্টা, জুলাই ০৪, ২০২১
এনইউ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa