ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

গরুর হাটে এবারের আকর্ষণ ‘ইতালিয়ান চিয়ানিনা’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭২৮ ঘণ্টা, জুলাই ৩, ২০২১
গরুর হাটে এবারের আকর্ষণ ‘ইতালিয়ান চিয়ানিনা’ ছবি: জিএম মুজিবুর

ঢাকা: ছয় মাস থেকে এক বছর পর্যন্ত লালন-পালন করে স্বাস্থ্যবান গরু কোরবানির সময় বিক্রি করেন। এভাবে ইতোমধ্যে আস্থা অর্জন করেছে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বেড়িবাঁধের ভাঙা মসজিদ এলাকার সাদেক অ্যাগ্রো খামারটি।

শনিবার (৩ জুলাই) খামার ঘুরে দেখা যায়, এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। বিভিন্ন বড় বড় কোরবানির পশুর সমারোহ এখন এই খামারে। রয়েছে দেশি-বিদেশি উন্নত জাতের গরু।

বিশেষ করে এরমধ্যে এবারের ঈদে সবচেয়ে আকর্ষণীয় হচ্ছে ‘ইতালিয়ান চিয়ানিনা’। তার দাম নির্ধারণ হয়েছে প্রায় ২৮ লাখ টাকা। এছাড়া ছোট বড় মিলিয়ে খামারে গরুর সংখ্যা প্রায় দুই হাজার।

এ বিষয়ে সাদের অ্যাগ্রোর সহকারী ব্যবস্থাপক মো. পরশ বলেন, ছোট বড় মিলিয়ে এবছর প্রায় দুই হাজার ২০০টি গরু লালন-পালন করা হয়েছে। আর দেশি-বিদেশি মিলেয়ে প্রায় ৫০টি অত্যাধিক বড় গরু রয়েছে। এই গরুগুলো ৫০ হাজার থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত পাওয়া যাবে।

এদিকে গরু ছাড়াও রয়েছে অন্যান্য গবাদি পশুও। বিশেষ করে ছাগল, ভেড়া, মহিষ, দুম্বাসহ বিভিন্ন কোরবানির পশু রয়েছে এই খামারে। আর সেগুলো বিক্রিও হচ্ছে বেশ ভালো।

এ বিষয়ে মো. পরশ জানান, এখানে সরাসরি ওজন মেপে গরু কেনার ব্যবস্থা রয়েছে। এক্ষেত্রে ছোট দেশাল গরু যেগুলো ২০০ থেকে ৪০০ কেজি, সেগুলো ৪২৫ টাকা আর ৪০০ থেকে ৫০০ কেজি পর্যন্ত ৪৭৫ টাকা কেজি হিসেবে বিক্রি করা হচ্ছে। আর গরু ছাড়াও ছাগল, ভেড়া, মহিষ, দুম্বাসহ বিভিন্ন কোরবানির পশু রয়েছে।

কোরবানি ঈদকে সামনে রেখে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন এই খামারের রাখালেরা। কোরবানির হাটে পশু বিক্রির জন্য প্রতি বছরের মত এবারো প্রাকৃতিক উপায়ে গরু মোটাতাজাকরণে কাজ করেছেন তারা। তবে করোনার কারণে কোরবানির পশু বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে তারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২৮ ঘণ্টা, জুলাই ৩, ২০২১
এইচএমএস/কেএআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa