ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

‘আমাদের দেখার কেউ নেই’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৬ ঘণ্টা, জুলাই ৩, ২০২১
‘আমাদের দেখার কেউ নেই’ রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে গল্প করছেন শ্রমিকরা। ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালের এক কোণে চুপ করে বসেছিলেন মো. তৌমুর। এসআর পরিবহনের গাড়ির চালক তিনি।

তিনি বললেন, কি বলবো বলেন স্যার? আমাদের দেখার তো কেউ নেই।

হতাশা মিশ্রিত কণ্ঠের স্বর শুধু তৌমুরের নয় রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের পরিবহন শ্রমিকদের। গত ১ জুলাই থেকে ‘কঠোর লকডাউন’ শুরু হওয়ার পর থেকেই মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা। অনেকেরই ঘরে খাবার নেই। সামনের দিনগুলো কীভাবে যাবে, সে চিন্তায় ঘুম হারাম এসব শ্রমিকদের।

শনিবার (৩ জুলাই) সরেজমিনে রাজধানীর সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল ঘুরে এ চিত্র নজরে পড়ে।

সকালে বাস টার্মিনাল প্রাঙ্গণে ঢুকেই দেখা যায় পরিবহন শ্রমিকদের জটলা। একে অপরের সঙ্গে কথা বলছিলেন তারা। সেখানেই কথা হচ্ছিলো মো. তৌমুরের সঙ্গে।  

বাংলানিউজকে তিনি বলেন, ‘লকডাউন’ যতবারই দিছে, সবার আগে গাড়ি বন্ধ করেছে। আর এতে বিপদে পড়তে হয়েছে আমার মতো দিন এনে দিন খাওয়া মানুষগুলো। আমাদের কে দেখবে? মালিকরা যে দেখবে তাদের অবস্থাও তো ভালো না।

রোমার পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার বিপ্লব হোসেন বাবু বলেন, ‘গাড়ি যদি না চলে আমাদের ঘরের চুলা জ্বলবে না। বাড়ি ভাড়া, কারেন্ট বিল, গ্যাস বিল- এসব কই থেকে দেবো? আমরা ভালো নেই রে ভাই। ’

রোমার পরিবহনের গাড়ির সুপারভাইজার মো. শুভ বলেন, ‘গত দুই বছর ধরে তো খালি ‘লকডাউন’ই হচ্ছে। আর বন্ধ হচ্ছে গাড়ি। এভাবে তো আমরা আর পারছি না। ’

রোমার পরিবহনের মালিক হুমায়ূন কবির বাংলানিউজকে বলেন, ‘শ্রমিকরা আমাদের দিকে তাকিয়ে থাকেন। কিন্তু আমাদের অবস্থা তো এখন আরো খারাপ। গাড়িগুলোর ব্যাংক লোন নিয়ে কেনা। কীভাবে এই লোন শোধ করবো। আর কীভাবে শ্রমিকদের টাকা দেবো, কীভাবে নিজের সংসার চালাবো।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বাংলানিউজকে বলেন, পরিবহন শ্রমিকরা কাজ করলে বেতন পায়, না করলে পায় না। এর ফলে তারা এখন খুবই খারাপ অবস্থায় রয়েছেন। শ্রমিকদের এমন দুর্দিনে পরিবহন মালিকদের এগিয়ে আসতে হবে। আমরা এবারও শ্রমিকদের পাশে দাঁড়াবো।

ঢাকা মহানগর সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক কাজী সেলিম সরোয়ার বলেন, আমরা এখনও সরকারের কাছ থেকে কোনো প্রণোদনার আশ্বাস পায়নি। নিজেরা যে কিছু করবো, তারও উপায় নেই। সবার অবস্থা খারাপ। তারপরও শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানোর চিন্তা-ভাবনা রয়েছে আমাদের।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৬ ঘণ্টা, জুলাই ০৩, ২০২১
ডিএন/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa