ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

সিলেটে ‘কঠোর বিধি-নিষেধের’ দ্বিতীয় দিনে ১৮৭ মামলা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২০ ঘণ্টা, জুলাই ৩, ২০২১
সিলেটে ‘কঠোর বিধি-নিষেধের’ দ্বিতীয় দিনে ১৮৭ মামলা মাঠে সেনা সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। ছবি: মহামুদ হোসেন

সিলেট: সরকার ঘোষিত ‘কঠোর বিধি-নিষেধের’ দ্বিতীয় দিনে সিলেট নগরে তল্লাশি অব্যাহত রেখেছে সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব-পুলিশ ও আনসার সদস্যরা। নগরী ও ১৩ উপজেলায় জেলা প্রশাসনের ৩৩ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয় ভ্রাম্যমাণ আদালত।



শুক্রবার (২ জুলাই) দিনভর ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে লকডাউন ও স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ব্যক্তি বিশেষ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও যানবাহনে ১৮৭ মামলা দায়ের করা হয়। এর বিপরীতে ২ লাখ ২৫ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সিলেট জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (সাধারণ কোভিড-১৯ মিডিয়া সেল) শাম্মা লাবিবা অর্ণব বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার কাজে আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ ও সার্বিক সহায়তা করেন সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ও বিজিবির সদস্যরা।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) ‘কঠোর বিধি-নিষেধের’ প্রথম দিনে মহানগর ও সব উপজেলায় ৩৩ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। পাশাপাশি সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও পৃথক অভিযান চালান। প্রথম দিনের ‘কঠোর বিধি-নিষেধের’ অমান্য করায় ব্যক্তি ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং যানবাহনে ২২০ মামলার বিপরীতে ২ লাখ ১১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আটক করা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের ১০৪টি গাড়ি।

শুক্রবার সকাল থেকে সিলেট নগরে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ছিল। এমনিতে লকডাউনে কাবু নগর জীবন। তার ওপর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি মানুষকে ঘরবন্দি রেখেছে। এদিন বৃষ্টি আর লকডাউনে কার্যত ফাঁকা ছিল সিলেটে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তদারকিও অনেকটা সহজ করে দেয় দিনভর হওয়া গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। তবে সকাল থেকে সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব-পুলিশ ও আনসার সদস্যরা মাঠে টহল দিতে দেখা গেছে।

আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি চালিয়েছে। প্রয়োজন ব্যতিরেকে যারা ঘর থেকে বেরিয়েছেন, তাদের জরিমানার মুখোমুখি হতে হয়েছে। অনেককে গুনতে হয়েছে জরিমানা। একই দিন বিকেলে নগরের প্রবেশদ্বার হুমায়ন রশিদ চত্বরে বর ও কনে বহনকারী গাড়ি আটক করে পুলিশ। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এরশাদ আলী তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে ছেড়ে দেন।

সিলেট মহানগর পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার আশরাফ উল্লাহ তাহের বলেন, দ্বিতীয় দিন লকডাউন বাস্তবায়নে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক ইউনিট মাঠে তৎপর। নগরের মোড়ে মোড়ে চৌকি বসিয়ে তল্লাশি চালিয়েছে সেনা ও পুলিশ সদস্যরা। মোট কথা সরকারি নির্দেশনা যারাই অমান্য করছেন, তাদের জরিমানার আওতায় আনা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১১১৯ ঘণ্টা, জুলাই ০৩, ২০২১
এনইউ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa