ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

‘লকডাউন’ বাস্তবায়নে ছুটির দিনেও মাঠে ফেনীর ডিসি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৮ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২১
‘লকডাউন’ বাস্তবায়নে ছুটির দিনেও মাঠে ফেনীর ডিসি

ফেনী: সরকার নির্ধারিত সাত দিনের ‘কঠোর লকডাউন’ বাস্তবায়নে ফেনীতে শক্ত অবস্থানে আছে প্রশাসন। মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে সচেতন করতে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব ও সেনাবাহিনী।

তৎপর রয়েছেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরাও। প্রচণ্ড বৃষ্টি আর বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেও তারা মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন।

শুক্রবার (২ জুলাই) সকালে জেলার দাগনভূঁইয়া পৌর শহরে দেখা যায় জেলা প্রশাসক (ডিসি) আবু সেলিম মাহমুদ উল হাসানকে। তিনি ‘লকডাউন’ পরিস্থিতি পরিদর্শন করতে সেখানে যান। এ সময় জেলা প্রশাসক বলেন, যেকোনোভাবে সরকার নির্ধারিত ‘কঠোর লকডাউন’ মানুষকে মানাতে হবে। মানুষ যদি সচেতন হয় তাহলে তাদের নিজেদের জন্যই মঙ্গল।

তিনি আরও বলেন, সরকারি নির্দেশনা মানাতে কঠোর অবস্থানে থাকবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। নির্দেশনা লঙ্ঘন করলে গ্রেফতার, জরিমানাসহ যেকোনো শাস্তিমূলক ব্যাবস্থা নেবেন তারা।
 
এ সময় জেলা প্রশাসকের সঙ্গে ছিলেন দাগনভূঁইয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা আক্তার তানিয়া, দাগনভূঁইয়া পৌর মেয়র ওমর ফারুক খান, বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন লিটন, কাউন্সিলর নুরুল হুদা সেলিম, দপ্তর সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সদস্য বেলাল, বাহাদুর।

শুক্রবার ‘কঠোর লকডাউনের’ দ্বিতীয় দিন চলছে। এটি বাস্তবায়নে জেলাজুড়ে মাঠে ছিল সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব-৭ ও বিজিবি সদস্যরা। সকালে শহরের বিভিন্ন স্থানে হ্যান্ডমাইকে প্রচারণা ও সতর্কতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন বিজিবির ফেনী ব্যাটালিয়নের সদস্যরা। এ সময় মাস্ক ব্যবহারে মানুষজনকে উদ্বুদ্ধ করাসহ বিনা প্রয়োজনে যারা ঘর থেকে বের হয়েছেন তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ফেনী ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর সেলিমুদ্দোজা জানান, ‘লকডাউন’ বাস্তবায়নে ফেনীতে ২ প্লাটুন বিজিবি সদস্য কাজ করছে। একই সময় শহরের বিভিন্ন স্থানে টহল দিয়েছে সেনাবাহিনীর সদস্যরা। এছাড়া শহরজুড়ে র‌্যাব-৭ এর সদস্যদেরও টহল দিতে দেখা গেছে। পাশাপাশি শহরের বিভিন্ন জায়গায় চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশ সদস্যদের তল্লাশি করতে দেখা গেছে। বিনা কারণে ঘর থেকে বের হলে মানুষজনকে জিজ্ঞাসাবাদসহ তাদের ঘরে ফিরে যেতে বাধ্য করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

অন্যদিকে ‘কঠোর লকডাউনে’ সকাল থেকে ফেনীর ব্যস্ত সড়কগুলো অন্য দিনের তুলনায় ছিল বেশ ফাঁকা। বিগত কয়েকদিন যাবত রিকশা ও ব্যক্তিগত গাড়ি চললেও আজ অতি প্রয়োজন ছাড়া কোনো রিকশা, ব্যক্তিগত গাড়ি ও গণপরিবহন চলতে দেখা যায়নি। এছাড়া সব বিপণিবিতানগুলো ছিল বন্ধ। খাবারের দোকান, ওষুধের দোকান ও ছোটখাটো কয়েকটি দোকান ছাড়া অন্য কোনো দোকান খুলতে দেখা যায়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৭ ঘণ্টা, জুলাই ০২, ২০২১
এসএইচডি/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa