ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাতীয়

নারী অধিকার রক্ষায় কাজ করে যাবে জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম

ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৮ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২১
নারী অধিকার রক্ষায় কাজ করে যাবে জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম

ঢাকা: আগামী এক দশক নারী অধিকার রক্ষায় কাজ করে যাবে জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম।

জেন্ডার ইক্যুয়ালিটি কার্যক্রম অগ্রগতির লক্ষ্যে ফ্রান্স-মেক্সিকো সরকারের সমাবর্তিত জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম একটি বৈশ্বিক মাইলফলক।

এই ফোরামের কাজ হচ্ছে- নারী সমতায় নাগরিক সমাজ ও যুবকদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা।  

শুক্রবার (২ জুলাই) ঢাকার জাতিসংঘ তথ্য কেন্দ্র এ তথ্য জানায়।

ইউএন উইমেন কর্তৃক আহ্বান করা জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম ২০২১ সালের ২৯-৩০ মার্চ মেক্সিকো সিটিতে উদ্বোধন করা হয়। এর কার্যক্রম প্যারিসে ৩০ জুন থেকে ২ জুলাই ২০২১ পর্যন্ত চলবে।  

জেন্ডার ইক্যুয়ালিটির জন্য কর্মজোটের মাধ্যমে স্থায়িত্ব এবং যোগ্যতা নিশ্চিতকরণ সাপেক্ষে একটি বহু-অংশীদার ভিত্তিক ইকোসিস্টেম তৈরি করতে জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম যথাযথভাবে কাজ করবে।  

ঐতিহাসিক চতুর্থ বিশ্ব নারী সম্মেলন এবং বেইজিং ঘোষণাপত্রের পঁচিশ বছরেরও বেশি সময় অতিবাহিত হওয়ার পরে লিঙ্গ সমতার অগ্রগতি ত্বরান্বিত করার জন্য জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম দৃঢ় পদক্ষেপ নেবে।

জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম বহুপাক্ষিকতার মূল্য পুনর্ব্যক্তের মাধ্যমে   বিভিন্ন অংশীদারদের নেতৃত্ব এবং অংশগ্রহণকে একত্রিত করতে চায়। সুশীল সমাজ, সরকার, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, নগর, সংসদ, ট্রেড ইউনিয়ন, মিডিয়া এবং আরও অনেককে একত্রিত করে ফোরামটি বিভিন্ন অংশীদারসহ আন্তঃপ্রজন্ম অংশগ্রহণের ওপর জোর দেয়।

মার্চ ২০১৯ থেকে সেপ্টেম্বর ২০২০ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত বেইজিং +২৫ পর্যালোচনা প্রক্রিয়ার কাঠামোর মধ্যে জেনারেশন ইক্যুয়ালিটি ফোরাম চালু করা হয়েছিল। ফোরামটি জেন্ডার ইক্যুয়ালিটির জন্য আর্থিক ও রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতিসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার জন্য একটি বহুখাত আন্দোলনে উৎসাহ যোগায়।  

আগামী এক দশকের মধ্যে নারী অধিকারকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য এবং কোভিড পরবর্তী পুনর্গঠন এজেন্ডায় জেন্ডার ইক্যুয়ালিটি কেন্দ্রবিন্দুতে রাখতে ফোরামটি কাজ করে যাচ্ছে।  

ফোরামের লক্ষ্য হচ্ছে একটি সাহসী নারীবাদী এজেন্ডা প্রবর্তন এবং 'অ্যাকশন কোয়ালিশনস' কার্যক্রম পরিচালনা। এর ফলাফল হবে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য পূরণের জন্য জাতিসংঘের কর্মদশকের (২০২০-২০৩০) সময় জেন্ডার ইক্যুয়ালিটির দিকে সুস্পষ্ট অগ্রগতি।

অ্যাকশন কোয়ালিশনটির কাজ হবে বিশ্বব্যাপী সুশীল সমাজ, আন্তর্জাতিক সংস্থা, বেসরকাররি খাত ও বহু অংশীদারিত্বকে নিশ্চিত করা।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪০ ঘণ্টা, জুলাই ০২, ২০২১
টিআর/এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa